ঈদযাত্রায় যেমন হবে লঞ্চের ডেক-চেয়ারের ভাড়া

নিজস্ব প্রতিনিধিঃবিধিনিষেধ শিথিল করায় আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে সারাদেশে শর্তসাপেক্ষে নৌযান চলাচল করবে। করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস-ট্রেনের মতই নৌযানেও ৫০ ভাগ আসন খালি রেখে ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বুধবার নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ঈদুল আজহা উপলক্ষে লঞ্চ, ফেরি ও স্টিমারসহ জলযান চলাচল সংক্রান্ত ঈদ ব্যবস্থাপনা সভায় এসব নির্দেশনা জানানো হয়। নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী সভায় (জুম) এসব নির্দেশনার কথা জানান।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেছন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে কোনো ছাড় নয়। আর ডেকের বিশেষ মার্কিং (চিহ্নিতকরণ) মেনেই করতে হবে যাত্রী পরিবহন। আর এক্ষেত্রে লঞ্চ মালিকদের লোকসান পোষাতে ডেক ও চেয়ারের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে ৬০ ভাগ। স্বাস্থ্যবিধি না মানলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। জরিমানা করা হবে। এক্ষেত্রে আমরা খুব কঠোর থাকব। নৌপথে ঈদযাত্রায় মানুষকে সুরক্ষিত রাখাই বড় চ্যালেঞ্জ হবে। শতভাগ মাস্ক পরতে হবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, বাস বা ট্রেনের ক্ষেত্রে যেভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানা সম্ভব, লঞ্চের ক্ষেত্রে অনেক সময় সেটা কঠিন। তারপরও আমরা ডেকে ‘মার্কিং’ করে দিয়েছি। মার্কিং অনুযায়ী চলতে হবে। লঞ্চ মালিকরাও যদি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে শিথিলতা দেখায় তাহলে তাদেরকেও ছাড় দেওয়া হবে না।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঈদের পর একদিনের মধ্যে রাজধানীতে ফেরার ক্ষেত্রে নৌপথে ফিরতি চাপটা কম হবে। কারণ কলকারখানা ছুটি থাকবে। বেশিরভাগ মানুষ ঢাকাতেই থাকবে। আর যারা গ্রামে যাবে তারা ছুটিতে থাকবে। সবার সহযোগিতায় এসব চাপ মোকাবিলা সম্ভব হবে।

সভায় অন্যদের মধ্যে মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, বিআইডব্লিউটিসি’র চেয়ারম্যান সৈয়দ এম তাজুল ইসলাম, নৌপরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর আবু জাফর মো. জালালউদ্দিন এবং বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here