ভাঙছে নদী, কাঁদছে মানুষ

রংপুর প্রতিনিধি:রংপুরের মিঠাপুকুরে যমুনেশ্বরী নদীতে পানি বৃদ্ধির সঙ্গে শুরু হয়েছে তীব্র ভাঙন। নদীগর্ভে বিলিন হচ্ছে জমি ও বসতভিটা। ভালো নেই ওই উপজেলার মিলনপুর ইউনিয়নের তরফসাদী ঢব্বার চরের মানুষ। নদীর পানির সঙ্গে তাদের চোখের পানি মিলেমিশে একাকার হয়ে গেছে।

চরম দুঃসময় কাটাচ্ছে ওই এলাকার মানুষ। তারা বলছে-, অপরিকল্পিতভাবে নদী থেকে বালু তোলার ফলে ব্যাপক ভাঙন দেখা দিয়েছে। এ পর্যন্ত নদীগর্ভে বিলীন হয়ে গেছে কয়েকশ’ একর জমি। এভাবে চলতে থাকলে বর্ষা মৌসুমে পুরো গ্রাম পানির নিচে চলে যাবে।

শনিবার দুপুরে সরেজমিনে দেখা গেছে, নদীতে খুব বেশি পানি নেই। তবু ভেঙে যাচ্ছে জমিজমা ও বসতভিটা। কয়েকদিন আগেও যেখানে ছিল ফসলের ক্ষেত, সেখানে এখন থৈথৈ পানি। নদী ভেঙে ধীরে ধীরে গ্রামের দিকে যাচ্ছে।

দিনদিন ভেঙে গ্রামের দিকে যাচ্ছে যমুনেশ্বরী নদী

দিনদিন ভেঙে গ্রামের দিকে যাচ্ছে যমুনেশ্বরী নদী

তরফসাদী ঢব্বার চরের শামসুল ইসলাম বলেন, তরফসাদী বালু মহলে নদীর উত্তর-পশ্চিম দিকে খনন করার কথা ছিল। কিন্তু ইজারাদার মূল নদীর পূর্ব-দক্ষিণ ও উত্তরদিক থেকে বালু উত্তোলন করেন। এতে গভীর হয়ে গেছে নদী। এ কারণে, পানি বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ভাঙন দেখা দিয়েছে। বর্ষা মৌসুমে পুরো গ্রাম নদীগর্ভে চলে যাওয়ার আশঙ্কায় আছে গ্রামবাসী।

একই গ্রামের বাসিন্দা রবিউল ইসলাম বলেন, আমরা অসহায় দিনমজুর- শ্রম দিয়ে খাই। জমিজমা যেভাবে ভেঙে যাচ্ছে- আমরা শিগগিরই নিঃস্ব হয়ে যাব। কদিন পর হয়তো আমাদের বসতভিটাও চলে যাবে নদীতে। আমরা বউ-বাচ্চা নিয়ে কোথায় থাকব? কি খাব?

মিঠাপুকুরের ইউএনও মামুন ভূঁইয়া বলেন, নদীভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছি। গ্রামবাসীর দুর্ভোগ লাঘবে শিগগিরই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here