জুয়ায় হেরে হত্যা, প্রধান আসামি গ্রেফতার

চাঁদপুর প্রতিনিধি:চাঁদপুর শহরের নিউ ট্রাক রোড এলাকার আলোচিত রেহান উদ্দিন মিজির ক্লুলেস হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি খোরশেদ আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা পুলিশের এসপি মিলন মাহমুদ প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

এর আগে খুনের মামলার পরেই এসপি মিলন মাহমুদ দ্রুত হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে অ্যাডিশনাল এসপি (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়, অ্যাডিশনাল এসপি (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন ও চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশীদকে নির্দেশনা দেন। নির্দেশনার ১ সপ্তাহের মধ্যেই তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ভিডিও ফুটেজ দেখে রেহান উদ্দিন মিজির চাঞ্চল্যকর ক্লুলেস হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি খোরশেদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ ব্যাপারে প্রেস ব্রিফিংকালে এসপি মিলন মাহমুদ বলেন, গরু বিক্রির ৬৫ হাজার টাকা জুয়া খেলায় হেরে যাওয়ার ক্ষোভ থেকেই রেহান উদ্দিন মিজিকে দা দিয়ে মাথা এবং শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাত করে হত্যা করে খোরশেদ আলম। পরে আমরা অনুসন্ধানের মাধ্যমে পলাতক খোরশেদ আলমকে প্রফেসর পাড়ার সাধন গাজীর মেস থেকে গ্রেফতার করি।

এসপি আরো বলেন, আসামির দেওয়া তথ্য মতে আমরা খুনে ব্যবহৃত দা, মৃত ব্যক্তির রক্তমাখা লুঙ্গি, ১টি গেঞ্জি, তাস, ১টি লাইটার, বেনসন সিগারেটের প্যাকেট ও ১টি নীল রঙের মাস্ক আলামত হিসেবে উদ্ধার করেছি। গ্রেফতারকৃত খোরশেদ আলমের বিরুদ্ধে আগেও ২টি গরু চুরির মামলা রয়েছে। সে মূলত লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার শেফালী পাড়া গ্রামের মোস্তফা ভূঁইয়ার ছেলে। তাকে বিকেলে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণের জন্য আদালতে পাঠানো হবে।

ব্রিফিংকালে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, চাঁদপুরের অ্যাডিশনাল এসপি (প্রশাসন ও অপরাধ) সুদীপ্ত রায়, অ্যাডিশনাল (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিন, চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশীদসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

গত ২৩ জুন বিকেলে শহরের নিউ ট্রাকরোড খান বাড়ি সড়কের তামান্না শারমিন ভিলার ৩য় তলার ভাড়াটিয়া রেহান উদ্দিন মিজি নির্মমভাবে খুন হন। এ ঘটনায় সদর মডেল থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে এবং পরবর্তীতে এ বিষয়ে মামলা হয়। প্রাথমিকভাবে তামান্না শারমিন ভিলার দারোয়ান ও নিহতের দ্বিতীয় স্ত্রীসহ সন্দেহজনক চারজনকে পুলিশ আটক করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here