শারীরিক সম্পর্কের পর প্রেমিকের অন্যত্র বিয়ে, স্কুলছাত্রীর আত্মহত্যা

ভোলা প্রতিনিধি:ভোলায় প্রেমে প্রতারিত হয়ে সাবিনা (১৫) নামে সপ্তম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। শুক্রবার (২৫ জুন) সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের তুলাতুলি সংলগ্ল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। নিহতের পরিবার জানায়, স্থানীয় সেলিম মালের মেয়ে আলহেরা মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী সাবিনার সঙ্গে পার্শ্ববর্তী ৪নং ওয়ার্ডের দীঘির পাড় এলাকার বারেক মিয়ার ছোট ছেলে নূরনবীর প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সাবিনা কিছু দিন আগে জানতে পারে ছেলেটি অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করে সংসার করছে ও তাদের বাচ্চাও রয়েছে। এতে মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে সাবিনা।

শুক্রবার (২৫ জুন) সকালে মেয়েটি বাড়ীর পাশের দোকান থেকে বিকাশের উপবৃত্তি টাকা তুলে পুনরায় বাড়িতে ফিরে আসে। দুপুর ১ টা দিকে সাবিনা তার রুমে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। মেয়ের মা সুফিয়া আক্তার রান্নার কাজে ব্যস্ত ছিলো। সাবিনার রুমের দরজা বন্ধ পেয়ে দরজা খুলতে বলে কিন্তু মেয়ের কোন সাড়াশব্দ না কারায় মা ডাক চিৎকার দিলে বাড়ীর লোকজন ছুটে এসে দরজা খোলার ব্যবস্থা করে। এসময় সাবিনা আক্তারকে খাটের উপর চিত হয়ে পরে থাকতে দেখে। উদ্ধার করার পূর্বেই সাবিনা মৃত্যুবরণ করে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে মর্গে প্রেরণ করে।

সাবিনার ফুফাতো বোন সাথী আক্তার (১৮) জানান, সাবিনার সাথে নূরনবীর সঙ্গে দীর্ঘ দেড় বছর যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। সাবিনা বিভিন্ন সময়ে আমার সাথে তাদের প্রেমের সম্পর্কে বিভিন্ন বিষয় শেয়ার করতো। বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে একাধিক বার শারীরিক সম্পর্ক করেছে। সাবিনা বিষয়টি মানতে না পেরে বিষপানে আত্মহত্যা করে।

সাবিনার চাচি মাহিনুর বেগম(৩৫) জানান, আমরা এই ঘটনার প্রকৃত দোষীর সুষ্ঠু বিচার মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবী জানাচ্ছি ।এই জাতীয় অপমৃত্যুর কারণে আর কোন পরিবার তার সন্তানকে না হারাতে হয় সেইজন্য কঠিন বিচার হওয়া দরকার।

এই ব্যাপারে অভিযুক্ত নূরনবীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তার বাবা বারেক মিয়ার সাথে এই ব্যাপারে কথা বললে তিনি জানান আমি এই বিষয় কিছুই জানি না।

ভোলা সদর মডেল থানার ওসি মোঃ এনায়েত হোসেন জানান, নূরনবী নামের একটি ছেলের সাথে মেয়েটি সম্পর্ক ছিলো বিষয়টি শুনছি। তবে এ সংক্রান্ত কোন লিখিত অভিযোগ আমরা হাতে এখনো পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here