শ্রদ্বাভাজন শিক্ষক আব্দুল্লাহ খানের আজ প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী

মেহেন্দিগঞ্জ প্রতিনিধি//মেহেন্দিগঞ্জের কৃতি সন্তান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক হেমায়েত উদ্দীন খান হিমুর পিতা অবসরপ্রাপ্ত প্রবীণ প্রধান শিক্ষক আব্দুল্লাহ খানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। স্থানীয়ভাবে তিনি আব্দুল্লাহ স্যার নামে পরিচিত। ছিলেন অসংখ্য শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগুরু। প্রবীণ শিক্ষক মরহুম আব্দুল্লাহ খানের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে আজ হাসপাতাল মসজিদে বাদ আছর মিলাদ, কোরানখানি এবং দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সমাজসেবক, পরোপকারী ও উদার মনের মানুষ মরহুম আব্দুল্লাহ খান বার্ধক্যজনিত কারনে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে ৭৮ বছর বয়সে ২০২০ সালের এদিনে ইন্তেকাল করেন। তিনি ১৯৪৩ সালে মেহেন্দিগঞ্জের চানপুর ইউনিয়নের চরখাককাটা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। আলোকিত মানুষ গড়ার নিপুণ কারিগর ছিলেন তিনি। বিদ্যালয়ে সততা, দক্ষতা, ন্যায়নিষ্ঠা ও প্রতিষ্ঠানের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সর্বোচ্চ যত্নশীল হয়ে টানা ৩৫ বছর প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষক সমিতির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। শিক্ষক সমাজের দীপ্তমান ব্যক্তিত্ব আব্দুল্লাহ স্যার শিক্ষকতাকে নিয়েছিলেন ব্রত, সাধনা, পেশা ও নেশা হিসেবে। তিনি ছিলেন নীতিতে অটল, প্রাতিষ্ঠানিক স্বার্থে কঠোর, বচনে স্বল্পভাষী এবং প্রশাসনে অসাধারণ। তিনি একাধারে ৩০/৩৫ বছর শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত থেকে প্রাইভেট টিউশন করেননি। শিক্ষার আলো বিচ্চুরণে মানুষের কাছে সম্মানিত হয়েছিলেন। তার বর্ণাঢ্য জীবনের মূল্যয়ন করতে গিয়ে শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ.টি.এম সেকান্দার আলী বলেন, মেহেন্দিগঞ্জের শিক্ষকদের একত্রিকরণ এবং শিক্ষক সমিতি গঠনে মূল ভূমিকা রেখেছিলেন আব্দুল্লাহ খান, এছাড়াও তিনি ছিলেন দক্ষ সংগঠক। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আলহাজ্ব কামাল উদ্দীন খান বলেন, আব্দুল্লাহ খান ছিলেন, আ’লীগের একজন নিবেদিত এবং দুর্দীনের কান্ডারী, মৃত্যুর পূর্বে তিনি উপজেলা আ’লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ছিলেন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় মুক্তিযোদ্ধাদের তিনি বিভিন্ন সাহায্যে সহযোগিতা করেছিলেন, সারাজীবন শিক্ষকতার পাশাপাশি আওয়ামী রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন। এমনকি মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা আ’লীগের সাবেক সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মাহেব হোসেন সরদার এবং উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আলহাজ্ব কামাল উদ্দীন খান’র শিক্ষাগুরু ছিলেন আব্দুল্লাহ খান। অর্থবিত্ত, প্রভাব -প্রতিপত্তি সবই ছিলো তার হাতের মুঠোয়। তবে ক্ষমতার এতো কাছে থেকেও তিনি ছিলেন ব্যতিক্রম। অর্থের মোহ তাকে কোন দিনই গ্রাস করতে পারেনি। শিক্ষকতার পাশাপাশি এলাকাবাসীর সঙ্গেও তার ছিল যথেষ্ট সুসম্পর্ক । প্রথম মৃত্যুবার্ষিকীতে তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন তার সুযোগ্য প্রবাসী দুই ছেলে হেমায়েত উদ্দীন খান হিমু ও মাহতাব উদ্দিন খান লিটু।উল্লেখ তার মৃত্যুর পরে তার পরিবার খান ফ্যামিলি ফাউন্ডেশন নামে একটি মানবিক সংগঠন গঠন করে এলাকার মানুষের দুর্দিনে বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করে আসছে যা সকলের কাছে বেশ প্রশংসনীয় হচ্ছে। অন্যদের কাছে অনুকরণীয়ও বটে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here