নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন কেদারপুরের বিদ্রোহী প্রার্থী মাহবুব আলম মাসুম মৃধা

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি : বরিশালের বাবুগঞ্জের কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী (আনারস প্রতীক) ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মাহাবুব আলম মাসুম মৃধা সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুর দুইটাই নিজ বাস ভবনে এক জনাকির্ন সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, “প্রিয় কেদারপুর ইউনিয়ন বাসি, সন্মানিত শুভানুধ্যায়ী ও সাংবাদিক ভাইয়েরা, আসসালামু আলাইকুম। আপনারা সবাই অবগত আছেন আমি ও আমার পরিবারের সবাই আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আওয়ামী পরিবারের সঙ্গে সরাসরি জড়িত। আমার বাবা মুক্তিযোদ্ধা মরহুম মকবুল আহমেদ মৃধা কেদারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাংগঠনিক সম্পাদক ও পরবর্তীতে কয়েক যুগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। আমার মেঝ ভাই নুরে আলম বাবলু উপজেলা আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। আমি ১৯৯২ সনে আবুল কালাম কলেজ থেকে ছাত্র রাজনীতি শুরু করি। ১৯৯৬ সালে কেদারপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি নির্বাচিত হই। ২০১২ সালে কেদারপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হই। পরপর দুটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলাম। কিন্তু পরিতাপের বিষয় আমাকে মনোনয়ন দিতে দল অপারগতা প্রকাশ করে। আমি বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করি। যেখানে কেদারপুর ইউনিয়নের অধিকাংশ জনগণ আমাকে সমর্থন জানিয়েছিলেন। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। তারপরেও আমি যেহেতু সংগঠনের সঙ্গে জড়িত সে কারনেই আমার এ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানো সমিচিন মনে করি। এ কারনেই জেলা আওয়ামী লীগ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সঙ্গে আলোচনা করেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি। পাশাপাশি দলীয় মনোনয়ন ও নৌকার পক্ষে পূর্বের ন্যায় আমার সমর্থন ব্যাক্ত করছি। পরিশেষে সকল আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করার জন্য কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে প্রচারে অংশগ্রহণ করার জন্য আহবান জানাচ্ছি”। কবে থেকে নৌকার প্রচারনায় নামবেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি মানুষিক ভাবে বিপর্যস্ত ও শারীরিক ভাবে অসুস্থ। একটু সুস্থ হলে অচিরেই নৌকার প্রচারে নামবো। উল্লেখ্য তিনি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী মনোনয়ন চেয়ে আবেদন করেন। মনোনয়ন না পেয়ে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে নির্বাচনে আসেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here