এবার হজ আদায়ে সৌদির নতুন নিয়ম

ধর্ম ডেস্ক:মহামারির জন্য এবারও সীমিত পরিসরে হচ্ছে হজ। সৌদি সরকার এ বছর হজের জন্য তিনটি প্যাকেজ অনুমোদন করেছে। গত বছরের মতো এবারও বাইরের দেশের কোনো মুসল্লির হজ করার সুযোগ দেয়া হচ্ছে না। কেবল সৌদিতে বসবাসরত বিদেশি নাগরিক ও সেদেশের বাসিন্দাদের নির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষ এবার হজ করতে পারবেন।

দেশটির সরকারি মন্ত্রণালয়ের বরাতে জানা গেছে, এবার মাহরাম (পুরুষ অভিভাবক-নিকটাত্মীয়) ছাড়া-ই নারীরা অনলাইনে হজের জন্য নিবন্ধন করতে পারবেন। এ বছরের হজের নিবন্ধন রোববার (১৩ জুন) দুপুর দেড়টা থেকে শুরু হয়েছে। আগামী ২৩ তারিখ রাত ১০টা পর্যন্ত নিবন্ধনের পরিসেবা চালু থাকবে। প্রাথমিক আবেদনকারীদের জন্য এতে কোনো অগ্রাধিকার থাকবে না।

এবার হজ আদায়ের তিন প্যাকেজ
হজ আদায়ের জন্য অনুমোদিত তিনটি প্যাকেজগুলোর ব্যয় হলো- এক. ১৬ হাজার ৫৬০ সৌদি রিয়াল (বাংলাদেশি মুদ্রায় তিন লাখ ৮০ হাজার টাকা)। দুই. ১৪ হাজার ৩৮১ সৌদি রিয়াল (বাংলাদেশি মুদ্রায় তিন লাখ ৩০ হাজার টাকা)। তিন. ১২ হাজার ১১৩ সৌদি রিয়াল (বাংলাদেশি মুদ্রায় দুই লাখ ৭৮ হাজার টাকা)। এছাড়াও প্রতিটি প্যাকেজের সঙ্গে ভ্যাট যুক্ত করা হবে।

সৌদির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইট অনুসারে জানা যায়, হাজিদের যাতায়াতে ও পরিবহনের জন্য বাস দেয়া হবে। যানবাহনে সর্বাধিক ২০ জন হজযাত্রী থাকবেন। তাদের মিনায় প্রতিদিন তিনবেলা খাবার এবং আরাফাতে দুইবেলা খাবার (প্রাতঃরাশ ও মধ্যাহ্নভোজ) সরবরাহ করা হবে। মুজদালিফায় রাতের খাবার দেয়া হবে। অন্যান্য খাবার ও পানীয় পরিসেবা তাদের দেয়া হবে। তবে মক্কার বাইরে থেকে হাজিদের সঙ্গে করে খাবার আনতে দেয়া হবে না।

হজের আবেদনগুলো পাঁচ পর্যায়ে গৃহিত হবে। এতে সম্ভাব্য হজযাত্রীর স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য পর্যালোচনা ও স্বীকৃতি প্রদান এবং তাদের অফিসিয়াল কাগজপত্রের ভিত্তিতে ব্যক্তিগত বিবরণ সরবরাহ করার বিষয়টিও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

যারা হজ আদায় করতে পারবে
এরপরে জাতীয় তথ্য কেন্দ্রে সরবরাহিত তথ্যের ভিত্তিতে সিস্টেম অনুযায়ী হজের জন্য আবেদনকারীর যোগ্যতা যাচাই করবে। কোনো আবেদন গৃহীত হয়ে গেলে, আবেদনকারীর বিষয়াদি আরও অনুসন্ধানের জন্য তাকে একটি নিবন্ধকরণ নম্বর দেয়া হবে। এছাড়াও কোনো আবেদনকারীর কোভিড-১৯ স্থিতি নিশ্চিত করার পরে (সম্পূর্ণরূপে দায়মুক্তি, টিকার প্রথম ডোজের মাধ্যমে নিরাপদ নিশ্চয়তা বা পুনরুদ্ধারের পরে প্রতিরোধ ক্ষমতা ইত্যাদি সম্বলিত) অর্থ প্রদানের বিশদসহ একটি পাঠ্য বার্তা পাঠানো হবে।

সৌদি হজ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, হজের জন্য নিবন্ধনের অর্থ এই নয়ে যে- চূড়ান্ত হজের অনুমতি মিলে গেছে। স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বাধ্যতামূলক সব শর্ত ও বিধি পূরণের পর আবেদন গৃহিত হলে— হজ আদায়ের অনুমোদন দেয়া হবে। এমনকি হজ আদায়ে স্বাস্থ্যবিধি ও নিয়ম-শৃঙ্খলা লঙ্ঘন করলে— তখন যে কোনো সময় যে কারও আবেদন প্রত্যাখ্যান করার অধিকার মন্ত্রনালয়ের রয়েছে।

হজের আবেদনকারীকে যা নিশ্চিত করতে হবে
হজের আবেদন করার আগে প্রতিটি আবেদনকারীকে অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে যে, তারা গত পাঁচ বছরে হজ পালন করেনি। তারা কোনো দীর্ঘস্থায়ী রোগে ভুগছেন না এবং তারা করোনায়ও আক্রান্ত নয়। এছাড়াও এটাও নিশ্চিত করতে হবে যে, গত ছয় মাসে তারা দীর্ঘস্থায়ী রোগের কারণে বা ডায়ালাইসিস চিকিৎসার জন্য কোনো হাসপাতালে ভর্তি হননি।

এবারের হজ জুলাইয়ের মাঝামাঝিতে শুরু হবে। শনিবার (১২ জুন) ঘোষণা করা হয়েছিল যে, ৬০ হজযাত্রীকে এবছর হজ পালনের অনুমতি দেয়া হবে। কর্তৃপক্ষ আরও বলেছে, হজ করতে ইচ্ছুকরা অবশ্যই যে কোনো দীর্ঘস্থায়ী রোগ থেকে মুক্ত থাকার পাশাপাশি তাদের বয়স ১৮ থেকে ৬৫ বছরের মধ্যে হতে হবে।

হজ আবেদন প্রক্রিয়ার ‘বাছাইপর্ব’ ২৫ শে জুন থেকে শুরু হবে। হজ মন্ত্রণালয়ের এক অফিসিয়াল টুইটের মাধ্যমে জানা যায়, আবেদনকারীরা তাদের প্যাকেজ গ্রহণের সুযোগ বাতিল না হওয়ার জন্য নির্বাচনের তিন ঘণ্টার মধ্যে ফি আদায় করতে হবে। তবে নিবন্ধিত আবেদনকারীদের মধ্যে যারা কখনও হজ করেনি, তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here