ঢাকাগামী লঞ্চে তরুনী ধষনের ঘটনায় হিজলা থানায় মামলা

 

হিজলা প্রতিনিধিঃ বরিশালের হিজলা উপজেলায় ঢাকাগামী লঞ্চে তরুনীর ধষনের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।২ ই জুন বুধবার হিজলা থানায় মামলা করে ধষনের শিকার হওয়া তরুনী মোসাঃ কাজল(২০)।কাজিরহাট থানা মাধব রায় গ্রামের খলিল হাওলাদারের পূত্র মাইদুল ইসলাম(৩০) নামের জনৈক ব্যাক্তি দ্বারা ধষনের শিকার হয় কাজল।ঘটনা সূত্রে জানা যায় গত ২৯ই মে বিকালে কাজিরহাট থানার ভাষানচন থেকে রাজহংস ১০ লঞ্চে করে ঢাকা নারায়গঞ্জ যাওয়ার উদেশ্য উঠে কাজল।একই লঞ্চে ছিল ধষক মাইদুল্ ইসলাম।কাজল ও মাইদুলের বাড়ি একই গ্রামে থাকায় তারা পৃব পরিচিতি ছিলো।একপযায়ে কাজল ও মাইদুল আলাপচারিতার মাঝে কাজলকে বিয়ে প্রস্তাব দেয়।এবং সুকৌশলে কেবিনে নিয়ে যায়।সেখানে তাকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে কু প্রস্তাব দেয়।তাতে তরুনী রাজি না হওয়াতে জোর পূবক সারারাত ধষক করে।ধষনের শিকার তরুনী কাউকে যেনো না বলে তার হুমকি প্রদান করে।সকালে লঞ্চ সদরঘাট টামিনালে পৌছালে ধষক মাইদুল ইসলাম কেবিন থেকে পালিয়ে যায়।পরেরদিন গ্রামের বাড়িতে এসে ধষনের শিকার কাজল তার পরিবারকে বিষয়টি অবহিত করে।তখন তাদের পরামশ ক্রমে কাজিরহাট থানায় একটি অভিযোগ করে।ধষনের ঘটনা জানতে চাইলে কাজল জানায় সেদিনে আমাকে লঞ্চে বিভিন্ন কথা বলার মাঝে বিয়ের প্রস্তাব দেয়।আমি রাজি না হওয়ায় কৌশলে আমাকে কেবিনে নিয়ে ইচ্ছের বিরুদ্ধে জোড়পূবক ধষন করে।সকালে লঞ্চ ঘাটে গেলে সে পালিয়ে যায়।তখন নিরুপায় আবার গ্রামের বাড়িতে চলে আসি।এ বিষয়টি তার পরিবারকে জানালে মাইদুলের বাবা খলিল হাওলাদার আমাকে ১০ হাজার টাকা নিয়ে চলে যেতে বলে।তাই আমি এখন ন্যায় বিচারের জন্য মামলা করেছি।হিজলা থানা ভারপ্রাপ্ত কমকতা অসিম কুমার সিকদার জানায় একটি মেয়ে ভাষানচর টু ঢাকাগামী রাজহংস ১০ লঞ্চে ধষনের শিকার হয়।ধষনের শিকার মেয়েটি আমার কাছে মামলা করতে আসলে আমি মামলা রুজু করি।ধষনের বিষয়ে মুঠোফোনে ধষক মাইদুল ইসলাম জানায আসলে মেয়েটি আমাদের পাশের বাড়ির।আমরা এক সাথে লঞ্চে ঢাকা যাওয়ার পথে আলাপচারিতা হয়।আর কিছুই হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here