বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনকারী ২ জন তরুণীর দুঃসম্পর্কের আত্মীয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে যৌন নির্যাতন ও ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় নতুন তথ্য প্রকাশ করেছে ভুক্তভোগী তরুণী। অভিযুক্তদের ২ জন তার দুঃসম্পর্কের আত্মীয় বলে জানিয়েছেন ভুক্তভোগী ওই তরুণী।

পুলিশকে ভুক্তভোগী তরুণী জানান, তিনি অভিযুক্তদের চিনতেন। তাদের দু’জন তার দুঃসম্পর্কের আত্মীয়। আমিরাত থেকে কয়েক মাস আগে দূর সম্পর্কের আত্মীয় মোহাম্মদ বাবা শেখে তাকে ভারতে এনে পতিতিবৃত্তিতে বাধ্য করেন।

জানা গেছে, বাবা শেখ ভুক্তভোগী ওই তরুণীর এক দূর সম্পর্কের আত্মীয়কে বিয়ে করেন। এ ঘটনায় তার স্ত্রীও অভিযুক্ত হয়ে গ্রেফতার রয়েছেন। বাবা শেখ ও তার সহযোগীরা বাংলাদেশ থেকে তরুণীদের ভারতে বিউটি পার্লারে বা গৃহকর্মীর কাজ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে কর্ণাটক, তেলেঙ্গানা ও কেরালায় পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করে আসছিলেন। ভুক্তভোগী তরুণীকে ফাঁদে ফেলে এই দলে যোগ দিতে বাধ্য করা হয়েছিল। পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অর্থনৈতিক বিবাদের কারণে ওই তরুণীকে নির্মম নির্যাতনের ঘটনা ঘটে।

ব্যাঙ্গালুরু পুলিশ জানিয়েছে, ভুক্তভোগী তরুণীকে সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই পাঠানো হয়েছিল, সেখানে তাকে দেহ ব্যবসায় ঠেলে দেয়া হয়েছিল। প্রায় এক বছর ধরে রেস্তোরাঁ-বারে নর্তকীর কাজও করেন তিনি। যারা কেরালা থেকে মেয়েটিকে ট্র্যাক করে উদ্ধার করেছিল তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

ওই তরুণীর অভিযোগ, পরবর্তীতে চক্রটি থেকে আলাদা হয়ে কোজিকোডে চলে আসেন তিনি এবং সেখানে একটি ম্যাসেজ পার্লারে কাজ শুরু করেন। এর ফলে অভিযুক্তদের সঙ্গে ভুক্তভোগীর অর্থনৈতিক বিবাদ দেখা দেয়।

ব্যাঙ্গালুরু পুলিশের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, আর্থিক কলহের সমাধানের কথা বলে তাকে আবার ব্যাঙ্গালুরুতে আনা হয়েছিল। তিনি বাড়িতে ঢোকার সঙ্গে সঙ্গেই তারা তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে, যৌন ও পাশবিক নির্যাতন করে। এ সময় তারা এসব দৃশ্য মোবাইল ফোনে ভিডিও করে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়।

তিনি আরো বলেন, ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি ছাড়াও আমরা অভিযুক্তের মোবাইল ফোন থেকে আরো দুটি ভিডিও উদ্ধার করেছি। তারা তাকে ব্ল্যাকমেইল করতে ভিডিও রেকর্ড করেছে। ক্লিপগুলো সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করার হুমকি দিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, ভারতে কয়েকজন মিলে এক তরুণীকে বিবস্ত্র করে যৌন নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে বাংলাদেশি এক যুবকসহ পাঁচজনকে আটক করে কেরালা পুলিশ। পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনার মো. শহিদুল্লাহ জানান, পাঁচজন আটকের ঘটনায় এক যুবকের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here