বাসে অতিরিক্ত যাত্রী উঠানোর প্রতিবাদ করায় জানালা দিয়ে শিশুকে নিক্ষেপ

বরিশাল প্রতিনিধি:সরকারি নির্দেশ অমান্য করে বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়ার প্রতিবাদ করায় ৩ যাত্রীকে মারধর ও এক শিশুকে বাসের জানালা দিয়ে বাইরে নিক্ষেপ করার অভিযোগ উঠেছে পরিবহন শ্রমিকদের বিরুদ্ধে। শুক্রবার সকালে বরিশাল নগরীর রূপাতলী বাস টার্মিনালে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মারধরের শিকার ৩ জনের নাম যথাক্রমে শামীম সিকদার, তার মা হাসনুর বেগম ও ভাগ্নে বৌ কারিমা। তাদের সঙ্গে ছিলেন সাত বছরের শিশু কন্যা মুনিয়া। তারা সবাই মঠবাড়িয়ার বাসিন্দা। অপরদিকে মুন্না নামে বাসের এক সুপারভাইজাররের নেতৃত্বে তাদের এই মারধর করা হয়। শুক্রবার দুপুরে শামীম সিকদার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

ভুক্তভোগী শামীম সিকদার জানান, তার মা, ভাগ্নে বৌ ও তার সাত বছরের শিশু কন্যা মুনিয়াকে নিয়ে মঠবাড়িয়া যাওয়ার উদ্দেশে তারা ওই বাসে উঠেছিলেন। পূর্বে বরিশাল থেকে মঠবাড়িয়ার ভাড়া ১৫০ টাকা থাকলেও সরকারি নির্দেশনায় অতিরিক্ত ভাড়া হিসেবে নির্ধারিত ২৪০ টাকা করে ভাড়া আদায় করা হয়। শিশুসহ তারা চারজন ২৪০ টাকা করে টিকিট নিয়ে সিটে বসেন। কিন্তু নিয়ম অনুযায়ী সিট খালি না রেখে বাসের সুপারভাইজার দাঁড়িয়ে অতিরিক্ত যাত্রী তোলে।

এতে বাসে ভিড় হওয়ায় শামীম প্রতিবাদ করলে বাসের সুপারভাইজার, হেলপারসহ টার্মিনালের ১৫-২০ জন শ্রমিক তাকে মারধর করেন। একপর্যায়ে তার মা ও ভাগ্নে বৌ তাকে বাঁচাতে গেলে তাদেরও মারধর করেন এবং শিশু কন্যাকে জানালা দিয়ে নিচে ছুড়ে ফেলে দেন পরিবহন শ্রমিকরা। পরে তাদের চারজনকে না নিয়ে ঠাসাঠাসি অবস্থায় বাসটি যাত্রী নিয়ে মঠবাড়িয়ার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

এ বিষয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটনের কোতোয়ালী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক রেজাউল ইসলাম জানান, এক যাত্রীর পরিবারের চার সদস্যকে মারধরের ঘটনায় ট্রাফিক পুলিশ থানা পুলিশকে জানালে তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। কিন্তু তার আগেই বাসটি গন্তব্যে চলে যায়।

এদিকে রূপাতলী বাস টার্মিনালের একাধিক যাত্রী জানান, অভ্যন্তরীণ সব রুটে সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে বাস চলাচল করছে। প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় বাস মালিক ও শ্রমিকরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। যদিও বরিশাল জেলা প্রশাসন বাসে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here