আদালত খুলে দেওয়ার দাবি

নিজস্ব প্রতিনিধিঃআগাম এবং আত্মসমর্পণ করে জামিন নেওয়ার বিধান বন্ধ থাকায় হয়রানির শিকার অনেক বিচারপ্রার্থী। গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তারা। তাই সীমিত পরিসরে এ বিধান চালুর দাবি জানিয়েছেন আইনজীবীরা। সুপ্রিম কোর্ট বলছে, আগাম জামিন চালু হলে ভিড় বাড়বে, বাড়বে করোনার ঝুঁকিও। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই আবারো আদালত চালুর কথা জানানো হয়।

করোনা সংক্রমণের কারণে আদালতে লোক সমাগম এড়াতে দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ আগাম জামিন। এমনকি বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাওয়ারও সুযোগ নেই। সে কারণে নতুন মামলায় যারা আসামি হয়েছেন তারা পড়েছেন চরম বিপাকে। গ্রেফতার এড়াতে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তারা।

আইনজীবীরা বলছেন, ঝুঁকি থাকলেও সীমিত পরিসরে আগাম জামিনের বিধান চালু হওয়া উচিত।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার আতিকুর রহমান বলেন, মানুষ মিথ্যা ও অনেক হয়রানিমূলক মামলায় তার সাংবিধানিক অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন এবং ফেরারি জীবন-যাপন করছেন।

এ নিয়ে প্রধান বিচারপতির কাছে আবেদনও করেছে আইনজীবীরা। কিন্তু বিচারক, বিচারপ্রার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঝুঁকি বিবেচনায় রাজি হয়নি সুপ্রিমকোর্ট।

সুপ্রিম কোর্টের আনজীবী সমিতি সাধারণ সম্পাদক বলেন, এখন যেহেতু করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা কমে গেছে। আমি মনে করি, এখন আদালত খুলে দেওয়া যায়।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান বলেন, এ ভোগান্তিটা ক্ষণিকের জন্য। পরিস্থিতি আগের মতো হলে আদালত আবার আগের মতো চলবে।

বতর্মানে দেশের আদালতগুলোতে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে জরুরি মামলার শুনানি হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here