সমাজসেবা কার্যালয়ের দিন-রাত পরিশ্রমে “জি টু পি” সুবিধা পাওয়া শুরু করেছে বাবুগঞ্জবাসী

বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি : বাবুগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মাহমুল হাসিব ও অফিস স্টাফদের অক্লান্ত পরিশ্রমে সরকারে নেয়া পদক্ষেপ ‘জি টু পি’ গভর্নমেন্ট টু পাবলিক” সুবিধা পেতে শুরু করেছে বাবুগঞ্জবাসী। সরকারের এই কর্মসূচি বাস্তবায়নে শুক্র-শনি সরকারি ছুটির দিনসহ নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন বাবুগঞ্জ সমাজসেবা কার্যালয়। বয়স্ক, বিধবা প্রতিবন্ধী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তি ভাতা ভোগীরা এই কর্মসূচির আওতায় ব্যাংকে লাইনে না দাড়িয়ে ঘরে বসে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে টাকা পেয়ে যাবে। ইতিমধ্যে বাবুগঞ্জের অনেক ভাতাভোগী মোবাইলের নগদ এ্যাকাউন্টে টাকা পেতে শুরু করেছে। উপজেলার ১৫৩০৬ জন ভাতাভোগীকে জি টু পি শুবিধার আওতায় আনার কাজ চলমান রয়েছে।
উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মাহমুল হাসিব বলেন, ভাতা ভোগীদের ‘জি টু পি’ এর আওতায় আনার কাজ চলমান রয়েছে। এই কাজ করতে অনেক বেগ পেতে হয়। মোবাইল নম্বর ভুল, বন্ধ ও রেজিষ্ট্রেশন বিহীন হওয়ায় অনেক ভাতাভোগীকে পেরোল দিতে বিল্বিত হচ্ছে । আমরা সব ভাতাভোগীকে ফোন দিয়ে কনফর্ম হয়ে পেরোল দিচ্ছি। সকল ভাতাভোগীকে সঠিক, রেজিষ্টেশন করা মোবাইল নম্বর দিয়ে সহযোগীতা করার অনুরোধ করা হলো।
এদিকে সমাজসেবা অধিদপ্তরের জি টু পি কার্যক্রমকে ভাতাভোগীসহ সংশ্লিষ্ট সবাই সাদুবাদ জানিয়েছে।
যারা মোবাইলের মাধ্যমে জি টু পি সুবিধা পেয়েছেন তারা আবেগাপ্লুত হয়ে বলেন, একটা সময় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ব্যাংকের সামনে দাড়িয়ে ও বসে থাকতে হয়েছে। এখন আমরা ঘরে বসেই ভাতার টাকা মোবাইলে পাচ্ছি। জি টু পি সুবিধার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সমাজসেবা অধিদপ্তরের সকলকে কষ্ট লাঘবের জন্য আন্তরিক সাদুবাদ জানাই।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here