দুর্ঘটনার পর শিমুলিয়ায় নৌ পুলিশের কড়াকড়ি

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি:মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ও মাদারীপুরের বাংলাবাজার নৌরুটে চলাচল করে প্রায় চার শতাধিক স্পিডবোট। দীর্ঘদিন নিবন্ধন ও যাচাই-বাছাই ছাড়া অদক্ষ চালক দিয়ে চলাচল করছে যাত্রীদের এমন অভিযোগ দীর্ঘদিনের।

গেল সোমবার সকাল ৬ টায় ৩২ জন যাত্রী নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা সীবোট মাদারীপুরের শিবচরের নিকট পৌছলে বাল্কহেটের সাথে সংঘর্ষে ২৬ জন প্রান হারায়। দুর্ঘটনার পর থেকে নড়েচড়ে বসেছে নৌপুলিশ। বাড়ানো হয়েছে নজরদারি। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে শিমুলিয়া ঘাটে।

গত মঙ্গলবার (৪ মে) সকাল থেকে শিমুলিয়া ঘাট থেকে কোনও স্পিডবোট ছেড়ে যায়নি। বাঁশ দিয়ে ঘাট এলাকা ঘিরে রাখা হয়েছে। সোমবার স্পিডবোট চলাচল করলেও আজ কিছু যাত্রী এসে ঘাট এলাকায় ঢুকতে না পেরে ফেরত যাচ্ছে । আর কর্তৃপক্ষ বলছেন, আজ থেকে কড়া নজরদারি রাখা হচ্ছে।

নৌপুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল কবির জানান, স্পীডবোট দুর্ঘটনায় ২৬ জন নিহত হওয়ার ঘটনায় গত মঙ্গলবার শিবচর উপজেলার চর জানাজাত নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির এসআই লোকমান হোসেন বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। মামলায় লৌহজং উপজেলার মেদিনীমন্ডল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আশরাফ আলীর ছোট ভাই ও শিমুলিয়া ঘাটের ইজারাদার শাহ-আলম স্পিডবোটের দুই মালিক চান্দু মিয়া ও জহিরুর ইসলাম এবং স্পিডবোটটির চালক শাহ আলমকে আসামি করা হয়েছে। এদিকে দূর্ঘটনা তদন্তে ৬ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি ঘঠন করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here