মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যেন মুখের বুলিতেই সীমাবদ্ধ না থাকে

রিয়াজ পাটওয়ারী : মুক্তিযুদ্ধ বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবময় ঘটনা। এই যুদ্ধের মধ্য দিয়েই আমরা লাভ করেছি স্বাধীন দেশ, নিজস্ব পতাকা। ১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ বাংলার ছাত্র-যুবক, কৃষক-শ্রমিকসহ সর্বস্তরের জনগণ বর্বর হানাদার পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে সশস্ত্র যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়। তারই পরিণতিতে ১৯৭১ সালের ১৬ই ডিসেম্বর অর্জিত হয় চূড়ান্ত বিজয়। বিশ্বের মানচিত্রে খোদিত হয় একটা নাম- ‘স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ’। দে‌শের জন‌্য মু‌ক্তি‌যোদ্ধা‌দের ছিল অপ‌রসীম ত‌্যাগ। তাদের ত‌্যাগের কথা আমা‌রা কখ‌নো ভুল‌তে পার‌বোনা। স্বর্ণাক্ষ‌রে লেখা থাক‌বে তাদের নাম। শহীদ মু‌ক্তি‌যোদ্ধাদের আত্মা শা‌ন্তি পে‌য়ে‌ছে রাজাকার‌দের ফা‌ঁসি দে‌খে। মু‌ক্তি‌যোদ্ধার মানহানী কর‌তে উঠে প‌ড়ে লে‌গে‌ছে একদল কুচ‌ক্রি মহ‌ল। তাদের হা‌তে অপমান অপদস্থ‌্য হ‌চ্ছে মু‌ক্তি‌যোদ্ধা‌দের প‌রিবার। ১৮ এ‌প্রিল শওকত আলী (বীর বিক্রম)’র মেয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ডা. সাঈদা শওকত জেনি প্রাইভেট কারযোগে এলিফেন্ট রোডের ওই এলাকা দিয়ে যাচ্ছিলেন। এ সময় পুলিশের সহযোগিতায় দায়িত্বপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেট তার গাড়ি থামিয়ে পরিচয়পত্র দেখতে চান। ওই চিকিৎসক জানান, তিনি পরিচয়পত্র বাসায় রেখে এসেছেন।একপর্যায়ে উত্তেজিত হয়ে উঠেন চিকিৎসক জেনি। এদিন দুপুরে তিন পক্ষের বাগবিতণ্ডার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এতে বিভিন্ন গণমাধ্যমসহ উৎসুক জনতার নানা পর্যবেক্ষণ ও মন্তব্য করতে দেখা গেছে। ৩০ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় হেফাজতে ইসলামের আলোচিত নেতা মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করার অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছে স্ত্রী দাবি করা সেই জান্নাত আরা ঝর্ণা। এর আ‌গে ঝর্ণার বাবা বীরমু‌ক্তি‌যোদ্ধা গু‌লিয়ার রহমান’র আবেদনের ভিত্তিতে গত মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) মোহাম্মদপুরের একটি বাসা থেকে জান্নাত আরা ঝর্ণাকে উদ্ধার করে পুলিশ। মামলার এজাহারে ঝর্ণা বলেছেন, ‘আমার সরলতার সুযোগ নিয়ে মামুনুল হক আমাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আমার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে। আমাকে গত দুই বছর ধরে বিভিন্ন সময়ে ঢাকা ও ঢাকার পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকায় ঘোরাঘুরির নাম করে নিয়ে গিয়ে তার পরিচিত বিভিন্ন হোটেল ও রিসোর্টে রাত্রীযাপন ও বিয়ের আশ্বাস দিয়ে তার যৌন লালসা চরিতার্থ করে। আমি বিয়ের কথা বললে সে আমাকে করবো-করছি বলে নানা অজুহাতে কালক্ষেপণ করতে থাকে।’ রাজধানীর গুলশান-২-এর ১২০ নম্বর রোডের ১৯ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা শফিকুর রহমান’র মে‌য়ে মোসারাত জাহান (মুনিয়া)’র মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এঘটনায় আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ এ‌নে বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরকে আসামি ক‌রে মামলা দা‌য়ের ক‌রে‌ছে মু‌নিয়ার বোন নুসরাত জাহান। নি‌ষেধাজ্ঞা থাকা স‌ত্যেও দেশ ত‌্যাগ ক‌রে‌ছেন আনভীর। এসকল ঘটনা নি‌য়ে কোন বিবৃ‌তিও দেখা যায় নি মু‌ক্তি‌যোদ্ধা সংগঠ‌ক‌দের কা‌ছে থে‌কে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা যেন মুখের বুলিতেই সীমাবদ্ধ না থাকে এ‌দি‌কে আমা‌দের সক‌লেরই খেয়াল রাখ‌তে হ‌বে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here