বলাৎকারের পর ভিডিও ধারণ করা মাদ্রাসাশিক্ষক গ্রেপ্তার

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি:সাতক্ষীরার কালিগঞ্জে এক শিক্ষার্থীকে বলাৎকারের পর ভিডিও করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে হাফেজ আনোয়ারুল ইসলাম নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

বুধবার (৭ এপ্রিল) রাতে উপজেলার বাজারগ্রামের কফিল উদ্দীন হাফিজিয়া মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

 

হাফেজ আনোয়ারুল ইসলাম উপজেলার কালিকাপুর মোড়লপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বার মোড়লের ছেলে ও কালিগঞ্জ কফিল উদ্দীন হাফিজিয়া মাদরাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষক।

পুলিশ জানায়, ৩-৪ দিন আগে মাদ্রাসা শিক্ষক আনোয়ারুল ইসলাম তারই মাদ্রাসার ১৬ বছরের এক শিক্ষার্থীর সঙ্গে বিকৃত যৌনাচারের নগ্ন ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিলে তা পুলিশ সুপারসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দৃষ্টি গোচর হয়। এরপর পুলিশ সুপারে নির্দেশে এ বিষয়ের সত্যতা ও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক ইয়াছিন আলমের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযানে নামেন।

এ বিষয়ে সত্যতা পাওয়ার পর ওই শিক্ষককে তার মাদ্রাসার শয়ন কক্ষ থেকে গ্রেপ্তার ও তার কাছ থেকে একটি এনড্রয়েড মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়। ওই মোবাইল ফোনে আরো কয়েকজন শিশুর সঙ্গে তার বিকৃত যৌনাচারের ধারণকৃত নগ্ন স্থিরচিত্র পাওয়া যায়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক ইয়াছিন আলম চৌধুরী জানান, এ ঘটনায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হুমায়ন কবির বাদী হয়ে ইতোমধ্যে পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে কালিগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তার মাদ্রাসা শিক্ষক অনেকদিন ধরে বহু ছাত্রকে এভাবে বলাৎকার করছেন। এছাড়া ওই বলাৎকারের দৃশ্য তিনি মোবাইলে ধারণ করে ওই সব শিশু ছাত্রদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আবারো বিকৃত যৌনাচারে লিপ্ত হতে বাধ্য করতেন।

গ্রেপ্তার মাদ্রাসা শিক্ষককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here