তামিমার ‘গোমর’ ফাঁস করলেন সুবাহ

বিনোদন ডেস্ক:সাবেক স্বামী রাবিককে তালাক দিয়েই জাতীয় দলের ক্রিকেটার নাসির হোসেনকে বিয়ে করেছেন বলে জানিয়েছেন নাসিরের স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মি। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান তামিমা।
তামিমা বলেন, ২০১৭ সালে রাকিবকে তালাক দেই। রাকিবের সঙ্গে আমার বিয়ে হয়েছিল এবং আমাদের একটি সন্তান আছে। এছাড়া রাকিব যেসব কথা বলছেন তার সবই মিথ্যা। এ ছাড়াও তামিমা গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে প্রমাণ স্বরূপ প্রথম বিয়ের তালাকের কাগজ প্রকাশ করেন।

নাছির বলেন, সে তো এখন আমার স্ত্রী। আমার স্ত্রীর বিরুদ্ধে রাকিব সাহেব বা যে কেউ বাজে কথা বললে আমি আইনি ব্যবস্থা নিবো।

তবে এই ঘটনায় নতুন মাত্রা দিয়ে যাচ্ছেন নাসিরের সাবেক প্রেমিকা হুমায়রা সুবাহ। নাসিরের সংবাদ সম্মেলনের পর সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হন সুবাহ। সংবাদ সম্মেলনে নামির হোসেন উপস্থাপন করেন তামিমা ও রাকিবরে বিয়ে বিচ্ছেদ হয়েছে ২০১৭ সালের। ২০১৬ সালে বিয়ে বিচ্ছেদের আবেদন করেছিলেন তারা। কিন্তু সুবাজ হাজির তামিমার পাসপোর্টের কপি নিয়ে। ২০১৮ সালের এই পাসপোর্ট কপিতে দেখা যায় তামিমার স্বামীর নামের পাশে রাকিব লেখা একই সাথে জরুরি প্রয়োজনে যোগাযোগ নম্বরও রাকিবের।

সুবাহর এই পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘কিছু প্রমাণ দিলাম। জানিনা ঘটনা আসল কি। যাচাই করুন রাকিব ভাইয়াকে ফাঁসানো হচ্ছে এবং হবে। তামিমার পাসপোর্ট ২০১৮ সালের স্বামীর নাম দেয়া রাকিব হাসান। তাহলে ১৬ সালের জাল তালাকনামা আবার কিসের?’

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্তোরাঁয় নাসির ও তামিমার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। তামিমা পেশায় একজন কেবিন ক্রু। কাজ করে একটি বিদেশে এয়ারলাইন্সে।

রাকিব হাসান নামের এক ব্যক্তি তামিমার স্বামী পরিচয় দিয়ে তাকে ডিভোর্স না দিয়ে তামিমা আবার বিয়ে করেছেন বলে অভিযোগ করেছেন। এ ঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেন রাকিব। থানায় তামিমার সঙ্গে দীর্ঘ সম্পর্কের কথা ও তার আট বছরের একটি মেয়ে আছে বলেও জানান।

এরপর এ ঘটনায় একটি লিগ্যাল নোটিশ পাঠান তিনি। প্রতারণার হাত থেকে বাঁচতে বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া ডিজিটাল করার নির্দেশনা চেয়ে আইন বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সচিবকে লিগ্যাল নোটিশটি পাঠানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here