পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় পর্যটকদের ঢল

সাঈদ ইব্রাহিম,পটুয়াখালীঃ ঋতুরাজ বসন্তে আগমনে শীতের শেষে ফাগুনের আগুন ঝড়া সূর্যউদয় এবং সূর্যঅস্তের মনোরম দৃশ্য উপভোগ করতে সাগরকন্যা কুয়াকাটায় মহান ভাষা শহীদ দিবস ও সাপ্তাহিক ছুটি মিলিয়ে তিনদিনের ছুটিতে সমুদ্র সৈকতে পর্যটকদের পদচারনায় মুখরিত। কুয়াকাটার ছোট বড়ো মিলিয়ে প্রায় ১৭০টি আবাসিক হোটেল-মোটেল-রিসোর্ট ফুল বুকিং হয়ে আছে ।

আশপাশের বাসাবাড়িতেও উঠছেন পর্যটকরা। কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশের পুরো টিম অক্লান্ত পরিশ্রম করছে পর্যটকদের সেবা নিশ্চিত করার জন্য। ইলিশ পার্ক ইকো রিসোর্টের ডেপুটি ম্যানেজিং ডাইরেক্টর ওয়াদুদ সজিব বলেন, ‘এক সপ্তাহ আগেই আমাদের সবগুলো কটেজ বুক হয়ে আছে। তারপরও আমরা চেষ্টা করছি গার্ডেনে তাবুতে কিছু অতিথিকে রাখার জন্য’।

গোপালগঞ্জ থেকে কুয়াকাটায় ভ্রমনে আশা পর্যটক অনুরুপ সরকার জানান এর আগেও আমি পবিারের সবাইকে নিয়ে কুয়াকাটায় আসছি এবারের মতো এতো পর্যটক চোখে পরেনি খুবই ভালো লাগতেছে এতো মানুষের সমাগম দেখে আশা করি এবারে ট্যুরটি আরো প্রানোবন্ত হবে। ট্যুর অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব কুয়াকাটা (টোয়াক)’র প্রেসিডেন্ট রুমান ইমতিয়াজ তুষার জানান, এই সপ্তাহে কুয়াকাটায় আবাসিক ধারন ক্ষমতার বেশি পর্যটক আসায় অনেকটা হিমশিম খাচ্ছে ব্যবসায়ীরা।

আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি পর্যটকদের সেবার মান নিশ্চিত করার জন্য। অত্যাধুনিক হোটেল খান প্যালেস এর মালিক রাসেল খান ক্রাইম ফোকাসকে জানান, আমাদের সবগুলো রুম বুকিং হয়ে গেছে। ছুটির এ তিন দিনের জন্য যেপরিমান রুম চেয়ে পর্যটকরা ফোন দিচ্ছে ফাকা না থাকায় দিতে পারছিনা।আশা করি সামনের দিন গুলোতে আরো বেশি পর্যটক আসবে কুয়াকাটায় । ট্যুরিস্ট পুলিশ জোন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার সোহরাব হোসাইন জানান, নিরাপত্তা ও সেবা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের পুরো টিম কাজ করে যাচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here