মেহেন্দিগঞ্জের সেই উপাধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে আরও দুই মানহানি মামলা

মেহেন্দিগঞ্জ প্রতিনিধি: বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে নির্বাচনী উঠান বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সম্মানহানি করে বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে সরকারি পাতারহাট আরসি কলেজের উপাধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে আরও দুটি মানহানির মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর মুখ্য হাকিম এবং বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে মামলা দুটি দায়ের করা হয়। ঢাকার রমনা থানার পাইওনিয়ার রোডের বাসিন্দা,হিজলা উপজেলার দুল খোল ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইকবাল হোসেনের ছেলে মো. নোমান হোসেনের দায়েরকৃত মামলাটি আমলে নিয়ে ঢাকা মহানগর মুখ্য হাকিম আদালতের বিচারক তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলাটি দায়ের করেছেন বরিশাল আদালতের আইনজীবী হিজলা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. মাইনুদ্দিন ডিপটি। বরিশাল আদালতের মামলাটি পরবর্তী আদেশের জন্য বিচারক অপেক্ষমান রাখেন। উভয় মামলার বাদী তাদের আর্জিতে বলেন, মেহেন্দিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে গত ২৬ জানুয়ারি পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আওলাদ হোসেন আমুর উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই উঠান বৈঠকে বক্তব্য দেন সরকারিবপাতারহাট আরসি কলেজের উপাধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম। বৈঠকে তিনি বলেন, ‘পঙ্কজ নাথের মনোনয়ন শেখ হাসিনার হাতে না এবং আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় যাবে কী যাবে না তার সঙ্গে জড়িত। পঙ্কজ নাথকে মনোনয়ন না দিলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় যাবে না। মামলার অভিযোগে বাদীদ্বয় জানান, উপাধ্যক্ষ শহিদুল ইসলাম তার বক্তব্যে শেখ হাসিনার ঊর্ধ্বে পঙ্কজ নাথকে স্থান দিয়েছেন। এছাড়া তিনি কোনো ধরনের সম্মান প্রদর্শন না করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ‘শেখ হাসিনা’বলে উল্লেখ করেছেন। তিনি তার বক্তব্যে বিশ্ব মানবতার নেত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জাতির সামনে হেয় করেছেন এবং দেশের সম্মানহানি করেছেন। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘এক হাজার কোটি টাকার মানহানি’ হয়েছে বলে দাবি করেন ওই দুই বাদী। এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলী আদালতে উপাধ্যক্ষ শহিদুল ইসলামের নামে এক হাজার কোটি টাকার প্রথম মানহানি মামলা দায়ের করেন বরিশাল জেলা পরিষদ সদস্য ও কাজির হাট থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান মিয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here