বাবুগঞ্জে অগ্রণী ব্যাংক শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের তদন্ত

অারিফ হোসেন, বাবুগঞ্জ প্রতিনিধি: বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নে অবস্থিত অগ্রণী ব্যাংক স্টীমারঘাট বাজার শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ মঞ্জুরুল হক এর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম,অদক্ষতা ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে স্থানীয় গ্রাহকরা মহাব্যবস্থাপক ও উপ-মহাব্যস্থাপক বরাবর তদন্ত চেয়ে আবেদন করেছে। ২৫জানুয়ারি ৬০জন গ্রাহকের সাক্ষরিত ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে স্টীমার ঘাট শাখা ব্যবস্থাপক’র বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগের তদন্তে দুই সদস্য বিশিষ্ট্য কমিটি গঠন করা হয়। বুধবার( ৩ফেব্রুয়ারি) সরজমিনে তদন্তে আসে তদন্ত কমিটির প্রধান বরিশাল আঞ্চলিক কার্যলয়ের প্রিন্সিপাল অফিসার মোহাম্মাদ আলী। তিনি সরোজমিনে এসে স্টীমারঘাট বাজার ব্যবসায়ী ও অভিযোগকারিদের সাথে সরাসরি কথা বলে বিষয়টি সমাধানের আশ্বাস প্রদান করেন। অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, অগ্রণী ব্যাংক স্টীমারঘাট বাজার শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ মঞ্জুরুল হক যোগদানের পর থেকে গ্রাহকদের সাথে খারাপ ব্যবহার , নতুন গ্রাহকদের হিসাব খুলতে উৎকোচ গ্রহন,রেমিটেন্স যোদ্ধাদের পাঠানো টাকা উত্তলনে ৫শত টাকা করে আদায়, উপ বৃত্তি হিসাব খোলা বাবদ ১০টাকার রিসিভ দিয়ে ১১০টাকা গ্রহন ও বিদ্যুৎ বিল আদায়ে রেভিনিউ স্টাম্প ব্যবহার না করে সরকারের রাজস্ব ফাকি দেয়ার মত গুরত্বর অভিযোগ উঠে এসেছে। এছাড়া অভিযোগ পত্রে উল্লেখ রয়েছে (আরটিজিএস) সেবা বন্ধ করে দেয়া, ঋন গ্রহীতাদের সাথে অশালীন ব্যবহার, ব্যবসায়ীদের ক্ষুদ্র ঋন দেয়া বন্ধ করে দিয়ে শাখাটিকে লোকসানের ঝুকি বহন করাচ্ছেন তিনি। অভিযোগকারিরা বলেন, উপজেলার অগ্রণী ব্যাংক স্টীমার ঘাট শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ মঞ্জুরুল হক ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে অনিয়ম, অদক্ষতা ও দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে গ্রাহকদের ভোগান্তিতে ফেলেছেন। ফলে লেনদেনে গ্রাহকদের অনিহা দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে কেদারপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরে আলম বেপারি তদন্ত কমিটির সামনে বলেন, বর্তমান ব্যবস্থাপক আসার পর থেকে অনিয়ম পরিলক্ষিত হয়েছে। অভিযুক্ত অগ্রণী ব্যাংক স্টীমারঘাট বাজার শাখা ব্যবস্থাপক মোঃ মঞ্জুরুল হক বলেন, একটি মহল তাকে বিতর্কীত করতে এ ধরনে অভিযোগ করেছেন। তবে তিনি বিদ্যুৎ বিল গ্রহনে রেভিনিউ স্টাম্প ব্যবহারে দুই একটি ভুল হতে পারে বলে স্বীকার করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here