কাঠের মসজিদে খোদাই করা পুরো কোরআন

কাঠের মসজিদে খোদাই করা পুরো কোরআন

নিউজ ডেস্কঃমসজিদ হচ্ছে মুসলিমদের ইবাদতের আনুষ্ঠানিক স্থান। তাই যুগে যুগে মসজিদকে সুন্দর করে নির্মাণ এবং স্থাপত্য শৈলী দিয়ে অন্য যেকোনো স্থাপনার চেয়ে আলাদাভাবে ফুটিয়ে তোলার একটি প্রয়াস দেখা যায়। তেমনই একটি মসজিদ হচ্ছে চীনের শানশি প্রদেশের শিয়ানের গ্রেট মসজিদ। এটি চীনের সবচেয়ে বড় এবং পুরনো মসজিদ।

এই মসজিদটি নির্মাণে অনন্য এক পদ্ধতির ব্যবহার হয়েছে। তাই পর্যটকদের কাছে একটি জনপ্রিয় পর্যটনস্থল হয়ে উঠেছে। মসজিদটির অধিকাংশ অংশ মিং রাজত্বের শুরুর দিকে তৈরি করা হয়েছে। যে কারণে মসজিদটি পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণ হয়ে উঠেছে তা হচ্ছে, এটা পুরোপুরি কাঠের তৈরি।

তাই মসজিদটি বিশ্বে অন্য যেকোনো মসজিদের চেয়ে অনন্য। আরও একটি কারণে এই মসজিদ মানুষজনের আকর্ষণ কেড়েছে। আর তা হচ্ছে মসজিদের কাঠের দেয়ালজুড়ে কোরআন খোদাই করা হয়েছে। আরবির পাশাপাশি সেখানে চীনা ভাষায় অনুবাদও লেখা রয়েছে।
মসজিদে ৩০টি প্যানেল রয়েছে। প্রতিটি প্যানেলে করে এক পারা করে মোট ৩০ পারা কোরআন খোদাই করা হয়েছে। প্রতিটি প্যানেলের নিচে চীনা ভাষায় কোরআনের অনুবাদ রয়েছে। ৭০০ বছরের পুরনো এই মসজিদটির পাঁচটি উঠানে এখন ২০টি ভবন রয়েছে। পুরো মসজিদটি ১২ হাজার স্কয়ার মিটারের ওপর স্থাপিত হয়েছে।

গত এক হাজার ৪০০ বছর ধরে চীনে মুসলিমরা বসবাস করছে। তারা প্রতিনিয়ত চীনা সমাজের সঙ্গে নিজেদের মিষ্ক্রিয়া বজায় রেখেছে। এক হিসাবে জানা যায় যে, চীনের মোট জনসংখ্যা ০.৪৫ থেকে ২.৮ শতাংশ হচ্ছে মুসলিম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here