ইসলামে মানুষ হত্যার বিষয়ে শাস্তির বিধান কি?

ধর্ম ডেস্ক:অপরাধ করলে শাস্তি পেতেই হবে। সেটা হোক দুনিয়ায় নয়তো আখেরাতে। আল কোরআনে আল্লাহপাক একজন মানুষ হত্যা করাকে গোটা মানব-জাতিকে হত্যার মতো জঘন্য অপরাধ বলে আখ্যায়িত করেছেন। এবং মানুষকে এই জমিনে তার প্রতিনিধি বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

আল কোরআনে ইরশাদ হয়েছে, ‘আর তোমার পালনকর্তা যখন ফেরেশতাদের বললেন, আমি পৃথিবীতে একজন প্রতিনিধি বানাতে যাচ্ছি, তখন তারা বলল, তুমি কি পৃথিবীতে এমন কাউকে সৃষ্টি করবে যে দাঙ্গা-হাঙ্গামার সৃষ্টি করবে এবং রক্তপাত ঘটাবে? অথচ আমরা প্রতিনিয়ত তোমার গুণকীর্তন করছি এবং তোমার পবিত্র সত্তাকে স্মরণ করছি। তিনি বললেন, নিঃসন্দেহে আমি জানি, যা তোমরা জানো না।’ সূরা বাকারা : ৩০।

তবে আল্লাহ তায়ালা ইরশাদ হয়েছে, ‘যে কেউ প্রাণের বিনিময়ে প্রাণ অথবা পৃথিবীতে অনর্থ সৃষ্টি করা ছাড়া কাউকে হত্যা করে সে যেন সব মানুষকেই হত্যা করল।’ (সূরা মায়েদা : ৩২)

অন্যদিকে একজন মানুষের জীবন রক্ষাকেও গোটা মানবজাতির জীবন রক্ষা বলে সাব্যস্ত করেছেন। ইরশাদ হয়েছে, ‘যে কারও জীবন রক্ষা করে, সে যেন সবার জীবন রক্ষা করে।’ (সূরা মায়েদা : ৩২)

যেহেতু একজন মানুষের জীবনের দাম এত বেশি, তাই এর সুরক্ষা ও নিরাপত্তার জন্যও প্রয়োজন কঠোর আইন ও বিধান। আর তাই আল্লাহতায়ালা মানুষের জীবনের সুরক্ষা ও নিরাপত্তার জন্য কিসাসের মতো কঠোর শাস্তির বিধান দিয়েছেন।

সেই আইনের নাম হচ্ছে কিসাস। এর মানে কেউ কাউকে অন্যায়ভাবে হত্যা করলে এর শাস্তিস্বরূপ ঘাতককে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত করা। কোরআনে বলা হয়েছে, ‘হে ইমানদারগণ! তোমাদের প্রতি নিহতদের ব্যাপারে কিসাস গ্রহণ করা বিধিবদ্ধ করা হয়েছে।’ (সূরা বাকারা : ১৭৮)

হাদিসে বলা হয়েছে, ‘মোমিন হচ্ছে সেই ব্যক্তি, যাকে মানুষ নিজেদের জীবন ও সম্পদের ক্ষেত্রে নিরাপদ মনে করে।’ (তিরমিজি)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here