ফরিদপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থীদের ছড়াছড়ি

ফরিদপুর  প্রতিনিধিঃনআসন্ন ফরিদপুর পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে বিএনপির মনোনীত এক প্রার্থীসহ বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের মোট চারজন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তবে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলন ও স্বতন্ত্রসহ মোট আটজন প্রার্থী মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
এ নির্বাচনে মেয়র পদে মোট আটজন মেয়র পদে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। রোববার এ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীসহ মোট ছয়জন মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর আগের দিন গত শনিবার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দুইজন জমা দেন।
রোববার দুপুরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক অমিতাভ বোস দুপুর আড়াইটার দিকে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন।
এর আগে গত শনিবার মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ফরিদপুর পৌরসভার বর্তমান মেয়র ও শহর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শেখ মাহাতাব আলী। তিনি দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দিয়েছেন।
অন্যদের মধ্যে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ইসলামি শাসনতন্ত্র আন্দোলনের প্রার্থী হাফেজ আবদুস সালাম। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন শহরের হাড়োকান্দি হাবেলি রাজাপুর এলাকার বাসিন্দা খন্দকার তৌফিক এনায়েত।
রোববার বিকেলে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মহিলা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন সম্পাদক নায়াব ইউসুফ আহমেদ দলীয় নেতাকর্মী নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী নায়াব ইউসুফ আহমেদ মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে যাওয়ার পর পরই একে একে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে মনোনয়নপত্র জমা দেন জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি এ এফ এম কাইয়ুম জঙ্গী, জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ কে কিবরিয়া স্বপন ও মহানগর যুবদলের সভাপতি বেনজীর আহমেদ তাবরিজ।
প্রায় অভিন্ন মতামত ব্যাক্ত করে জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ কে কিবরিয়া বলেন, বর্তমান আওয়ামী সরকার দুঃশাসনের অংশ হিসেবে দলীয় প্রার্থীর মোননয়নপত্র কোন কৌশলে বাদ দেওয়া হলে আমাদের প্রার্থীতা তখন কাজে দেবে। আমরা তিনজন বিদ্রোহী প্রার্থী নই, এটি আমাদের নির্বাচনী রণ কৌশল মাত্র।’
ফরিদপুরের জেলা রির্টানিং কর্মকর্তা সাহেদুন নবী জানান, বর্ধিত ফরিদপুর পৌরসভার ২৭টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে মোট ২০৮জন মোননয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এ ছাড়া নয়টি সংরক্ষিত মহিলা আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন মোট ৫২ জন।
এদিকে মধুখালী পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে মোট তিনজন মনোনয়নপত্র জাম দিয়েছেন। এরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী পৌর আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি বর্তমান মেয়র খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মধুখালী পৌর বিএনপির সভাপতি সাহাবুদ্দিন আহমেদ সতেজ ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মির্জা মিলন।
মধুখালী পৌরসভার নয়টি ওযার্ডে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩৪ এবং সংরক্ষিত তিনটি মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৪জন মোননয়নপত্র জমা দিয়েছেন।
মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে মঙ্গলবার। আগামী ১০ ডিসেম্বর ফরিদপুর সদর ও মধুখালী পৌরসভার নির্বাচনে ভোট গ্রহণ করার কথা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here