প্যাথলজি রিপোর্টে মৃত চিকিৎসকের স্বাক্ষর!

নিজস্ব প্রতিনিধিঃরোগীদের প্যাথলজি রিপোর্টে ব্যবহার হতো করোনায় মারা যাওয়া চিকিৎসকের নাম ও স্বাক্ষর। রাজধানীর শ্যামলীর হাইপোথাইরয়েড সেন্টার নামের একটি প্রতিষ্ঠানে এ ঘটনা ঘটতো। এ ঘটনায় সিলগালা করা হয় প্রতিষ্ঠানটি।

শনিবার (৭ নভেম্বর) দুপুর থেকে শ্যামলী স্কয়ারের বিপরীতে ২/১ নম্বর বাড়ির হাইপোথাইরয়েড সেন্টারে অভিযান চালায় র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম। পরে তিনি এই তথ্য জানান।

প্রতিষ্ঠানটির মালিক পলাতক থাকলেও দুই কর্মচারী সোহেল রানা ও রাসেলকে দুই বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

অভিযানকালে সারওয়ার আলম ব্রেকিংনিউজকে বলেন, ‘এই প্রতিষ্ঠান হার মানিয়েছে রিজেন্ট কিংবা জেকেজিকেও। ১০ বছর ধরে ল্যাব পরিচালনা করছে হাইপোথাইরয়েড সেন্টার। থাইরয়েডের নানা রিপোর্টসহ হেপাটাইটিস, ব্লাড কালচারসহ চলতো নানা পরীক্ষা। অথচ সেই ল্যাবের বেহাল দশা।’

তিনি বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানটি প্যাথলজির রিপোর্ট দিতো করোনায় মৃত অধ্যাপক মনিরুজ্জামানের স্বাক্ষরে। অক্টোবরেও তার নাম ও স্বাক্ষর ব্যবহার করে রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে। অথচ এই চিকিৎসক করোনায় মারা যান গত মে মাসের প্রথম সপ্তাহে।’

প্রতিষ্ঠানটির কর্মচারীরা বলছেন, দুই একটা টেস্ট করা হলেও বাকিগুলো দেয়া হতো অনুমান করে।

এছাড়া আরও মিলেছে চিকিৎসকের স্বাক্ষর করা অসংখ্য ভুয়া রিপোর্ট। হাইপোথাইরয়েড সেন্টার দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে কুরিয়ারে স্যাম্পল সংগ্রহ করে মেইলে রিপোর্ট দিতো।

এখনও অভিযান চলছে, অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here