ইলেক্টোরাল ভোটে এগিয়ে বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:হোয়াইট হাউসে যাওয়ার লড়াই জমে উঠেছে যুক্তরাষ্ট্রে। ৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত মার্কিন নির্বাচনে পুনরায় নির্বাচিত হতে লড়ছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আর প্রথমবারের মতো হোয়াইট হাউসে যেতে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেন। ভোট শেষ হওয়ার পর থেকে যুক্তরাষ্ট্রের মঙ্গলবার রাতটিতে এখন ফলের অপেক্ষায় সময় গুনছেন দুই প্রার্থী।

নির্বাচনের প্রথম ফলাফল যখন কড়া নাড়ছে, তখন মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো ফলাফলের পূর্বাভাস দিতে শুরু করেছে। এখন পর্যন্ত ইলেক্টোরাল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন ডেমোক্রেটিক প্রার্থী জো বাইডেন। তার ইলেক্টোরাল ভোটের সংখ্যা ২০৯টি। বিপরীতে ট্রাম্পের সম্ভাব্য ভোট ১১৮টি।

তবে সম্ভাব্য এই ফল থেকে বলা যাচ্ছে না, কে পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হতে যাচ্ছেন। কেননা, এখনও অপ্রত্যাশিত কিছু ঘটেনি। যার যেখানে জয় পাওয়ার কথা, তিনি সেখানেই এগিয়ে রয়েছেন। কিন্তু জাদুকরি সংখ্যাটি ২৭০। যে প্রার্থী ২৭০ ইলেক্টোরাল ভোট পাবেন তিনি নির্বাচনে জিতে যাবেন।

নির্বাচন পর্যবেক্ষকেরা আশা করছেন, কয়েকটি ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যের ফলাফল হোয়াইট হাউসের দৌড়ে গুরুত্বপূর্ণ হতে উঠতে পারে। এগুলোকে বলা হয় সুইং স্টেট। নির্বাচনি ফলাফল নির্ধারণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এ অঙ্গরাজ্যগুলো। সুইং স্টেট  মিশিগান, জর্জিয়া, টেক্সাস ও উইসকনসিনে এগিয়ে রয়েছেন ট্রাম্প। পেনসিলভানিয়ায়, ওহাইও, নিউ হ্যাম্পশায়ার এবং নর্থ ক্যারোলাইনায় এগিয়ে রয়েছেন জো বাইডেন। ফ্লোরিডায় চলছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হতে মোট ৫৩৮টি ইলেকটোরাল ভোটের মধ্যে অন্তত ২৭০টি নিশ্চিত করতে হবে। মার্কিন বার্তা সংস্থাগুলো জানিয়েছে, ভোটের পরিবেশ ছিল উৎসাহপূর্ণ ও ইতিবাচক। পরিস্থিতি ছিল অনেক শান্ত। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে ভোট প্রদান করেন আমেরিকানরা।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে অনেক অঙ্গরাজ্যে ভোটগ্রহণ বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা। ব্যাটলগ্রাউন্ড ওহাইয়ো ও নর্থ ক্যারোলাইনাতে সাড়ে সাতটার মধ্যে এবং পরবর্তী পাঁচ ঘণ্টার মধ্যে বন্ধ হওয়ার কথা বেশিরভাগ ভোটকেন্দ্র। সবশেষে ভোটকেন্দ্র বন্ধ হয় আলাস্কাতে। সেখানে স্থানীয় সময় বুধবার রাত ১টায় ভোটগ্রহণ শেষ হবে।

মঙ্গলবার ভোটের দিনের আগেই ১০ কোটি ২ লাখ মানুষ আগাম ভোট দিয়েছেন। যা ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মোট ভোটারের ৭৩ শতাংশ। ইলেকশন প্রজেক্টের জন্য তথ্য সংগ্রহকারী ইউনিভার্সিটি অব ফ্লোরিডার অধ্যাপক মাইকেল পি. ম্যাকডোনাল্ড জানিয়েছেন, এবারের নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি হতে পারে ৬৭ শতাংশ। এমনটি হলে এক শতাব্দীর বেশি সময়ের মধ্যে দেশটির সর্বোচ্চ ভোটার উপস্থিতির রেকর্ড হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here