ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থেকেও মিথ্যা মামলার আসামী সাংবাদিক মুরাদ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃপ্রতিনিয়তই সাংবাদিকদের উপর হামলা-মামলা বেড়েই চলেছে। একের পর এক হামলা ও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলায় এখন দিশেহারা কর্তব্যরত সাংবাদিকরা। আর এবার ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থেকেও ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলার শিকার হলেন সাংবাদিক মুরাদ হোসাইন। সাংবাদিক মুরাদ হোসাইন বর্তমানে  অনলাইন পোর্টাল দিগন্ত নিউজ এর সম্পাদক এবং নবগঠিত বরিশাল তরুণ সাংবাদিক ঐক্য পরিষদের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক। আর এখন ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলার শিকার হয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন তিনি। ঘটনা সূত্রে জানাযায়, গত ১লা নভেম্বর ২০২০ইং তারিখ সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার সময় ১০নং ওয়ার্ডস্থ কেডিসি এলাকায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন ( বিএডিসি) বরিশালের বীজ বিপণন কার্যালয়ে কতিপয় সাংবাদিক তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে তাদের সাথে অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের বাকবিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে তা হাতাহাতিতে রূপ নেয়। এ সময় দুই সাংবাদিক ও বিএডিসি অফিসের আল জুনায়েদ আদেল নামের এক ব্যক্তি আহত হয়। উক্ত ঘটনায় বিএডিসি’র পক্ষ থেকে একটি মামলা দায়ের করা হয়। কিন্তু উক্ত মামলায় একটি কুচক্রি মহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে নিরাপরাধ সাংবাদিক মুরাদ হোসাইনকে অন্তর্ভুক্ত করেন। প্রশ্ন থেকে যায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত না থেকেও কিভাবে, কার ইঙ্গিতে, কোন তথ্যপ্রমানের ভিত্তিতে সাংবাদিক মুরাদকে উক্ত মামলার আসামি করা হয়েছে? এ ব্যাপারে সাংবাদিক মুরাদ হোসাইন জানান, এ ঘটনা সম্বন্ধে আমি কিছু জানিনা। আমি ঘটনার দিন বিকাল থেকেই সদর নৌ থানা, লঞ্চঘাট, খেয়াঘাট, স্পিডবোট ঘাটে রাত ১০টা পর্যন্ত ছিলাম। সদর নৌ থানার সিসিটিভির ফুটেজ দেখলেই এর প্রমান পাওয়া যাবে। এছাড়াও সদর নৌ থানা পুলিশের একাধিক অফিসার ও কনস্টেবলও আমাকে দেখেছেন। এ ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শী এবং আহত আল জুনায়েদ আদেলের নিকটাত্মীয় মিজানুর রহমান বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন সাংবাদিক মুরাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হতাশাজনক। সাংবাদিক মুরাদ তখন ঘটনাস্হলেই ছিলোনা। কিন্তু কিভাবে তাকে আসামি করা হলো? মিজান বলেন আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলাম আমি মুরাদকে এক মুরাদকে একমুহূর্তের জন্য ওই স্থানে দেখিনি। এছাড়াও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শি সদর উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা সুজনসহ স্হানীয়রা উক্ত মামলা দায়েরের ঘটনাকে ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়ে হতাশা প্রকাশ করেন। তারা সাংবাদিক মুরাদ হোসাইনের বিরুদ্ধে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান। সাংবাদিক মুরাদ হোসাইন ও তার পরিবার এই ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা থেকে রেহাই পেতে পুলিশ কমিশনারসহ প্রশাসনের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here