বরিশালের পৃথক ধর্ষণ মামলার দুই আসামি গ্রেফতার

বরিশাল প্রতিনিধিঃবরিশাল পৃথক দুটি ধর্ষণ মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৮ এর সদস্যরা। রবিবার (১৮ অক্টোবর) বিকেলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে।

র‌্যাব জানায়, গত ৪ অক্টোবর বরিশাল জেলার গৌরনদী থানাধীন বাটাজোর গ্রামে ১৬ বছরের এক কিশোরীকে টাকার প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে প্রতিবেশী মু. সিরাজ বেপারী(৫০) জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। মেয়েটির চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করলেও অভিযুক্ত মু. সিরাজ বেপারী পালিয়ে যায়।

পরবর্তীতে এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এদিকে বিষয়টি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জানতে পেরে র‌্যাব-৮ সদস্যরা তদন্ত শুরু করে।  তদন্তের এক পর্যায়ে শনিবার (১৭ অক্টোবর) দিবাগত মধ্যরাতে র‌্যাব-৮, বরিশাল সিপিএসসির একটি আভিযানিক দল ঢাকা মহানগরীর যাত্রাবাড়ী থানা এলাকা থেকে ধর্ষক সিরাজ বেপারীকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর সিরাজ বেপারী প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেও র‌্যাব জানায়।

সে বাটাজোর এলাকার মৃত আরজ আলী বেপারীর ছেলে। অপরদিকে গত ১২ অক্টোবর বরিশাল মেট্রোপলিটনের এয়ারপোর্ট থানাধীন ইছাকাঠি গ্রামে ৩০ বছর বয়স্ক (নারী) ভিকটিমের নিজ বাড়ির রান্না ঘরের মধ্যে প্রতিবেশী সবুজ কান্তি (৫০) জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। মেয়েটির চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করলেও অভিযুক্ত মু. সিরাজ বেপারী পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে এ ঘটনায় ভিকটিমের পরিবার থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে এয়ারপোর্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়টিও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে জানতে পেরে র‌্যাব-৮ সদস্যরা তদন্ত শুরু করে।  তদন্তের এক পর্যায়ে রবিবার (১৮ অক্টোবর) সকালে র‌্যাব-৮, বরিশাল সিপিএসসির একটি আভিযানিক দল পিরোজপুর জেলার কাউখালী থানাধীন হরিণদারা এলাকা থেকে সবুজ কান্তিকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর সবুজ কান্তি প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেও র‌্যাব জানায়। সে বরিশাল নগরের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইসাকাঠি এলাকার  মৃত মিনাল কান্তি আইচের ছেলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here