আমতলীতে ওয়াকিটকি চুরি করে হয়ে গেলেন এসআই!

বরগুনা প্রতিনিধি: ওয়াকিটকি চুরি করে গত জুন মাসে পালিয়ে যান। তারপর হয়ে গেলেন পুলিশের এসআই! যেখানেই যেতেন সেখানেই নিজেকে পরিচয় দিতেন পুলিশের এসআই হিসেবে। শুরু হয় তার লাগামহীন প্রতারণা। বরগুনার আমতলীতে চন্দনসা ত্রিপুরা ওরফে ওসমান গনি নামে সেই ভুয়া এসআইকে গ্রেফতার করেছে আমতলী থানা-পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে একটি ওয়াকিটকি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে থানায় প্রতারণার মামলা হয়েছে।

 

 

শনিবার দুপুরে তাকে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঠানো হলে বিচারক সাকিব হোসেন তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এর আগে শুক্রবার রাতে পৌর শহরের বাঁধঘাট হোটেল ডিলাক্সের সামনে থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

 

 

আমতলী থানা-পুলিশ সূত্রে জানা যায়, খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার বড়রাইতৈসাপাড়া গ্রামের শুভরঞ্জন ত্রিপুরার ছেলে চন্দনসা ত্রিপুরা গত দুই বছর ধরে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে শ্রমিকের কাজ করে আসছিল। ওখান থেকে একটি ওয়াকিটকি চুরি করে গত জুন মাসে পালিয়ে যায়। ওই সময় থেকেই তিনি পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন এলাকায় প্রতারণা করে আসছে। শুক্রবার রাতে চন্দনসা আমতলী পৌর শহরের হোটেল ডিলাক্সের সামনে রিকশাচালক সিদ্দিকুর রহমানের কাছ নিজেকে পুলিশের এসআই পরিচয় দিয়ে বিভ্রান্তিমূলক কথা বলে। এতে রিকশা চালকের সন্দেহ হয়। পরে তিনি আমতলী থানায় খবর দেয়।

 

 

খবর পেয়ে ওসি শাহ আলম হাওলাদারের নেতৃত্বে এসআই মহিউদ্দিন অভিযান চালিয়ে তাৎক্ষণিক তাকে গ্রেফতার করে। ওই সময় তার কাছ থেকে একটি ওয়াকিটকি ও পুলিশের একটি কটি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় চন্দনসা ত্রিপুরার নামে আমতলী থানায় প্রতারণা মামলা করা হয়েছে।

 

 

আমতলী থানার ওসি মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, ভুয়া পুলিশের এসআই চন্দনসা ত্রিপুরার বিরুদ্ধে থানায় প্রতারণা মামলা হয়েছে। তাকে আমতলী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেলা হাজতে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here