বরগুনায় ফাঁকা গুলি

পাথরঘাটা প্রতিনিধি: বরগুনার পাথরঘাটায় সমুদ্র উপকূলবর্তী একটি চর থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় ২১টি আগ্নেয়াস্ত্র, ১০টি দেশি ধারাল অস্ত্র ও একটি কাঠের তৈরি ইঞ্জিন বোট উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড। অস্ত্র বহনকারী কাউকে আটক করতে পারেনি কোস্টগার্ড। আজ মঙ্গলবার দুপুরে উদ্ধারকৃত অস্ত্র পাথরঘাটা থানায় হস্তান্তর করে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে পাথরঘাটা থানায়। গত জুলাই ও আগস্ট মাসে কোস্ট গার্ড ৯টি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করে বলে দাবি করেছেন।

 

 

কোস্টগার্ডের পাথরঘাটা স্টেশনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট মেহেদী হাসান মঙ্গলবার দুপুরে জানান, পূর্ব সূত্র ধরে সাগরে টহল দেওয়ার সময় অস্ত্র বহনকারী সন্দেহে মাছ ধরার ট্রলার অনুসরণ করছিল এমন সময় সন্দেহজনক একটি ট্রলারকে তারা লক্ষ্য করে এগিয়ে যায়। ট্রলারটিকে আটক করার জন্য ১১ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করা হলেও দ্রুতগামী ট্রলারটি থামাতে ব্যর্থ হয় কোস্টগার্ড। এক পর্যায়ে নিকটবর্তী হরিণঘাটের কাছে লালদিয়া চরে ট্রলার ভিড়িয়ে জঙ্গলের মধ্যে পালিয়ে যায়। এ ঘটনা ঘটে সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে।

 

 

পাথরঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শাহাবউদ্দিন জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কোস্টগার্ড থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করার জন্য আসে। জিডিতে একনলা বন্দুক ১৫টি, দোনলা বন্দুক ১টি, দেশি পিস্টল-৫টি, দেশি রিভলভার-১টিসহ মোট ২১টি আগ্নেয়াস্ত্র এছাড়াও ছুরি ও ১০টি চাপাতি ও ছোরা জমা দেওয়ার কথা জিডিতে উল্লেখ করা হয়েছে। ওসি রাত সাড়ে ৮টায় জানান জিডি নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

 

 

কোস্টগার্ডের লেফটেন্যান্ট মেহেদী আরো জানান, অস্ত্রগুলো ট্রলারের মধ্যে মাছ রাখার বাক্স (ককশিটের তৈরি) ও মধ্যে রাখা ছিল। এছাড়া তিনি জুলাই ও আগস্ট মাসে অভিযান চালিয়ে আরো ৯টি দেশি বন্দুক উদ্ধার করেন।

 

 

পাথরঘাটায় এক অস্ত্র কোথা থেকে আসছে এর কোনো জবাব দিতে পারেনি কোস্টগার্ড বা স্থানীয় পুলিশ। লেফটেন্যান্ট মেহেদী অবশ্য বলেন, তারা বিষয়টির তদন্ত শুরু করেছেন। স্থানীয় মানুষের মনে তৈরি হচ্ছে নানা আতঙ্ক। পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. জাবির হোসেন দাবি করে বাহিনী অস্ত্র উদ্ধার করে বরং জনমনে স্বস্তি আনয়ন করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here