বিয়ের আগেই ব্রাউনিয়ার সঙ্গে বেডরুম ভাগাভাগি করতেন সারওয়ার্দী!

নিজস্ব প্রতিনিধি: বিয়ের আগে থেকেই উপস্থাপিকা ও সংগঠক ফারজানা ব্রাউনিয়ার সঙ্গে একই বাসায় থাকতেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) চৌধুরী হাসান সারওয়ার্দী। ২০১৮ সালের ১৬ আগস্ট তিনি প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেন। প্রথম সংসারে তার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। তারা তাদের মায়ের সঙ্গেই থাকে।

ব্রাউনিয়ার সঙ্গে সারওয়ার্দীর পরিচয়টা হয়েছিল ২০১৫ সালে মিরপুরে ন্যাশনাল ডিফেন্স কলেজে (এনডিসি) দুই সপ্তাহব্যাপী ক্যাপস্টোন কোর্স করার সময়। এরপর নানা সূত্রে তাদের ঘনিষ্টতা বাড়ে। পরস্পর আরও কাছাকাছি আসে।

দুই পরিবারের সম্মতিতেই সারওয়ার্দী-ব্রাউনিয়ার সম্পর্কটা পরিণয়ের দিয়ে এগোয়। ২০১৮ সালের ৬ নভেম্বর তাদের আক্দ হয়। ১৬ নভেম্বর বিয়ে নিবন্ধন হয়। ২০ নভেম্বর তারা সাভার গলফ ক্লাবে যান এবং পাশ্চাত্য শৈলীতে বিয়ের ফটোসেশনে অংশ নেন।

স্বর্ণ কিশোরী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ফারজানা ব্রাউনিয়ারও সেটি ছিল দ্বিতীয় বিয়ে। এর আগেও তিনি বিয়ে করেছিলেন। ২০০০ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে সংবাদ পাঠিকা হিসেবে ব্রাউনিয়ার ক্যারিয়ার শুরু হয়। তখন তিনি ইংরেজি সংবাদ পাঠিকা হিসেবে পরিচিতি পান। গ্ল্যামার গার্ল হিসেবে পরিচিত ব্রাউনিয়ার প্রথম বিয়ে হয়েছিল লন্ডন প্রবাসী এডফিল্ম মেকার মিনহাজ কিবরিয়ার সঙ্গে।

এদিকে ফারজানার সঙ্গে সম্পর্ক গাঢ়তর হওয়ার এক পর্যায়ে ২০১৮ সালের ১৬ আগস্ট প্রথম স্ত্রীকে তালাক দেন চৌধুরী হাসান সারওয়ার্দী।

ব্রাউনিয়াকে বিয়ে করার আগে থেকেই সারওয়ার্দী তাকে নিয়ে পহেলা বৈশাখ উদ্যাপন, সাজেক রিসোর্ট, খাগড়াছড়িতে অবকাশ যাপন, বিভিন্ন সময় ভারত, থাইল্যান্ড, আইসল্যান্ড, নরওয়ে ও সুইজারল্যান্ডে ভ্রমণ ও অবস্থান করেন। ২০১৮ সালের ২১ নভেম্বর সারওয়ার্দীর সঙ্গে ব্রাউনিয়ার বিয়ে হয়। অথচ ব্রাউনিয়াকে নিয়ে বিয়ের ১৭-১৮ দিন আগে (৩ নভেম্বর) থেকেই এক বাসায় থাকতেন সারওয়ার্দী। বিয়ের আগে থেকেই ব্রাউনিয়ার সঙ্গে বেডরুম ভাগাভাগি করতেন সদ্য সেনানিবাস এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষিত হওয়া সাবেক এই সেনা কর্মকর্তা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here