ইউনানি থেকে পাস করে এলোপ্যাথিকের চিকিৎসা, অতঃপর..

নিজস্ব প্রতিনিধিঃইউনানি থেকে পড়াশোনা করেছেন, অথচ চিকিৎসা করেন হৃদরোগ, লিভার, জন্ডিস, বাতজ্বরের মতো কঠিন রোগের। তাও এলোপ্যাথিক চিকিৎসায়। করেন হার্ট সার্জারিও। মিজানুর রহমান নামে ওই চিকিৎসক রাজধানীর মতিঝিলে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে দীর্ঘ ১২ বছর ধরে এভাবে প্রতারণামূলকভাবে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিলেন। তবে শেষ রক্ষা হয়নি তার। র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) ভ্রাম্যমাণ আদালত তাকে দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে।

রবিবার (২৮ জুন) বেলা ১২টা থেকে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভুয়া চিকিৎসক ও হাসপাতালে অনিয়মের খোঁজে ভ্রাম্যমাণ আদালত শুরু করেন র‍্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ বসু।

একই আদালতে ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের সহকারি সুপার লতিফুর রহমানকে চারলাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

অভিযান শেষে পলাশ বসু  জানান, মিজানুর রহমান ইউনানী পেক্টিশনার। কিন্তু তার কাছে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ, পিএইচডিসহ নানান সার্টিফিকেট আছে। তার পিএইচডি ডিগ্রি নিয়ে সন্দেহ আছে। তিনি ইউনানী পড়ে এলোপ্যাথিক মেডিসিনে প্রেসক্রাইব করতেন। কিন্তু তিনি অ্যালোপ্যাথিকে চিকিৎসা এবং ডাক্তার পরিচয় দিতে পারেন না। এজন্য তাকে দুই বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের বিভিন্ন অনিয়মের কারণে লতিফুর রহমানেক চারলাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here