শিশু পুত্রের পায়ে শিকল বেঁধে রেখেছে বাবা

নিজস্ব প্রতিনিধিঃকরোনা সংক্রমনের ঝুঁকির মধ্যে বন্ধুদের সাথে অবাধে মেলামেশা ও ঘোরাফেরা করায় মাদরাসা পড়-য়া আট বছরের এক শিশুর পায়ে শিকল বেঁধে রেখেছে তার বাবা। ঘটনাটি জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার রাজিহার ইউনিয়নের রাংতা গ্রামের।
জানা গেছে, ওই গ্রামের আবদুর রশিদ হাওলাদারের রাজিহার-গৌরনদী সড়কের রাংতা ব্রীজের পাশে একটি চায়ের দোকান রয়েছে। মহামারী করোনার কারণে গত কয়েক মাস থেকে তার (রশিদ) পুত্র রাব্বী হাওলাদারের মাদরাসা বন্ধ। বৃহস্পতিবার সকালে রাব্বি বাড়ি থেকে বের হয়ে বন্ধুদের সাথে ঘুরতে বেরিয়ে রাতে বাড়িতে ফেরে। করোনার মধ্যে সারাদিন বাহিরে থাকায় রাব্বির বাবা ও মা শেফালী বেগম শুক্রবার সকাল থেকে রাব্বির পায়ে শিকল বেঁধে তালাবদ্ধ করে বাবার দোকানে বসিয়ে রেখেছে।
শুক্রবার দুপুরে শিশু রাব্বির বাবা রশিদ হাওলাদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রায়ই রাব্বি বাড়িতে না থেকে গ্রামের বন্ধুদের সাথে অবাধে মেলামেশা করে। এতে করে পরিবারের সদস্যদের মধ্যেও করোনা ঝুঁকি বেরে গেছে। অনেক বোঝানোর পরেও রাব্বি তাদের কথায় কোন কর্নপাত করছেনা। তিনি আরও বলেন, আমি না ওর (রাব্বি) মা শিকল দিয়ে বেঁধেছে।
এ ব্যাপারে উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা সুশান্ত বালা বলেন, মহামারী করোনার জন্য যেকোন বাবা-মা তাদের সন্তানের নিরাপত্তার জন্য সাবধানতা অবলম্বন করতেই পারে। তবে শিশু অধিকার আইনে কোন শিশুকে এভাবে শিকল দিয়ে বেঁধে রাখা অপরাধ। এ ধরনের কাজ করা কোন বাবা ও মায়ের উচিত নয়। ঘটনাটি দুঃখজনক বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here