সাংবাদিক রেণুকে বাঁচাতে ৭ লাখ টাকা প্রয়োজন

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:সাংবাদিক কামরুজ্জামান খান গেণু ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার একজন নির্বিক কলম সৈনিক। তিনি উপজেলার মোয়াজ্জেমপুর ইউপির সৈয়দগাঁও গ্রামের মাহতাবউদ্দিন খানের ছেলে। 

১৯৯১ সালে নান্দাইল শহীদ স্মৃতি কলেজের ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী থাকাকালীন অবস্থায় ময়মনসিংহ থেকে প্রকাশিত ‘দৈনিক জাহান’ পত্রিকায় লেখালেখির মাধ্যমে সাংবাদিকতা শুরু করেন। 

পরবর্তীতে দেশের অন্যতম একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় কাজ শুরু করে আজ পর্যন্ত কর্মরত রয়েছেন। 

সাংবাদিকতার পাশাপাশি আওয়ামী পরিবারের সন্তান হিসেবে ছাত্রজীবনে ১৯৮৬ সাল থেকে  দীর্ঘদিন মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তী সময়ে সভাপতি নির্বাচিত হন। সমসাময়িক সময়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ছিলেন। ১৯৯৬ পরবর্তী সময়ে কিছু দিনের জন্য মোয়াজ্জেমপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া বঙ্গবন্ধুর সহযোদ্ধা ময়মনসিংহের গভর্নর রফিক উদ্দীন ভূইয়া স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতাকালীন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আজও দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন। নান্দাইল উপজেলার একজন অন্যতম এই সাহসী কলম যোদ্ধা  দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস সহ নানান রোগে ভুগছেন। 
 
বিগত চার মাস আগে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় ঢাকা শেখ রাসেল গ্যাসট্রোলিভার হাসপাতালের অধ্যাপক ডাঃ রফিকুল ইসলামের অধিনে চিকিৎসা গ্রহণ করেন। বেশ কিছু দিন চিকিৎসা গ্রহণ করেও কোনো উন্নতি হয়নি। পরে পরীক্ষা নিরীক্ষার মাধ্যমে তার লিভারে টিউমার ধরা পড়ে। যেখানে ক্যান্সারের সূচনা হয়েছে। যা থেকে প্রতিনিয়ত রক্তক্ষরণ হয়। যার ফলে প্রতিসপ্তাহে দুই পাউন্ড ‘ও’ পজিটিভ রক্ত নিতে হয়।  

তার স্ত্রী নাসরিন সুলতানা বলেন, দ্রুত উন্নত চিকিৎসা করতে না পারলে তাকে বাঁচানো যাবে না। চারটি সন্তান তাদের বাবাকে হারাবে। স্বামীর উন্নত চিকিৎসার জন্য ৬-৭ লাখ টাকা প্রয়োজন, এতো টাকা যোগাড় করা পরিবারের পক্ষে সম্ভব না। তাই সরকারের কাছে রেণুকে বাঁচাতে মানবিক সহযোগীতা কামনা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here