আয়না দেখলে কি ওজু ভেঙে যাবে?

নিজস্ব প্রতিনিধিঃপ্রচলিত আছে যে, ওজুর পর আয়না দেখলে ওজু ভেঙে যায়। তবে আসলেই কি আয়নায় ওজুর পর চেহারা দেখলে ওজু ভঙ্গ হয়? এ ব্যাপারটি কতটুকু সঠিক, সে সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক-

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম ও ভারপ্রাপ্ত খতিব মাওলানা মুফতি মহিব্বুল্লাহিল বাকী বলেন, ওজু ভাঙার কারণের মধ্যে এটা নেই বরং আয়না দেখার একটা নির্ধারিত দোয়া আছে, সেই দোয়া পড়লে বরং সাওয়াব পাওয়া যায়। দোয়াটি হলো- 

اللهم حسنت خلقي فحسن خلقي

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা হাসসানতা খালকী, ফা হাসসিন খুলুকী

অর্থ: আল্লাহ! তুমি আমার চেহারাকে যেমন সুন্দর করেছো তেমনি আমার চরিত্রকে ও সুন্দর করে দাও।

বিশানবী রাসূলুল্লাহ (সা.) আয়না দেখার সময় এ দোয়া পাঠ করতেন, (মেশকাত: ৫০৯৯)।

ওজু করার পর আয়না দেখলে ওজু নষ্ট হয় না, কোনো কিছু খেলেও ওজু নষ্ট হয় না। তবে এমন কিছু খাওয়া যাবে না যেটা খেলে নামাজের মধ্যে স্বাদ আসতে থাকবে। তাহলে ওজু ভেঙ্গে যাবে এবং নামাজ ছুটে যাবে। 

যেসব কারণ ওজু ভেঙ্গে যায়:

> প্রস্রাব-পায়খানার রাস্তা দিয়ে কোনো কিছু বের হলে। 

> প্রস্রাব-পায়খানার রাস্তা ব্যতীত শরীরের যেকোনো স্থান থেকে অপবিত্র বস্তু বের হয়ে গড়িয়ে গেলে (যেমন:রক্ত, পুঁজ ইত্যাদি)। 

> থুথু, কাশি ব্যতীত বমির সঙ্গে রক্ত, পুঁজ, খাদ্য অথবা অন্য কিছু বের হলে এবং মুখভর্তি বমি হলে। 

> থুথুর সঙ্গে বেশি পরিমাণে রক্ত এলে।

> চিত হয়ে, কাত হয়ে অথবা হেলান দিয়ে ঘুমালে। 

> বেহুশ হলে। 

> পাগল হলে। 

> নেশাগ্রস্ত হলে। 

> নামাজে অট্টহাসি হাসলে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here