ভৈরবে ছয় চিকিৎসকসহ ২০ জন করোনায় আক্রান্ত

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি:কিশোরগঞ্জের ভৈরবে আরো ছয় চিকিৎসকসহ ২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। ২০ জনের মধ্যে পাঁচজন নার্স ও চারজন পুলিশ সদস্য রয়েছেন।

গতকাল রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডা. বুলবুল আহমেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ফলে এ নিয়ে ভৈরবে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৫ জনে।

জানা গেছে, ভৈরবে এখন পর্যন্ত ৯৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। গত শনিবার ৩৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ২০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। প্রথমে ভৈরব থানার একজন পুলিশ সদস্যের (১০ এপ্রিল) করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। ফলে ওইদিন রাত ৮টা থেকে ভৈরবকে লকডাউন ঘোষণা করে প্রশাসন।

এরপর থানার সব পুলিশ সদস্যকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। একই সঙ্গে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয় পাঁচ চিকিৎসককেও। পরে কিশোরগঞ্জ পুলিশ লাইনস থেকে পুলিশের ৪০ সদস্য এনে থানার কার্যক্রম সচল রাখতে চেষ্টা করে প্রশাসন। তবে ওইদিনের পর থেকে থানার স্বাভাবিক কার্যক্রম ঝিমিয়ে পড়েছে। একইদিন থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পুরুষ ও নারী ওয়ার্ডকে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এরপরে শহরের আরো তিনটি বেসরকারি হাসপাতালকে লকডাউন হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ফলে এরপর থেকে সরকারি হাসপাতালসহ বেসরকারি হাসপাতালেও স্বাভাবিক সেবাদান ব্যহৃত হয়ে পড়ে।

এরমধ্যে যে ৩৫ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে ৩০ জনই সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডা. বুলবুল আহমেদ বলেন, গত তিনদিনে ৩০ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে। বিশেষ করে গতকালের রিপোর্ট জানার পর থেকে বর্তমান টিম দিয়ে সরকারিভাবে স্বাস্থ্যসেবা সচল রাখা অনেক কঠিন হবে। তাছাড়া দিন বাড়ার সঙ্গে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here