ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি ছাড়লো প্রেমিক, প্রেমিকার আত্মহত্যা

নড়াইল প্রতিনিধি: নড়াইলের লোহাগড়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি ছেড়ে দেওয়ায় লায়লা খানম (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।

বৃহস্পতিবার সকালে নিজেদের বসতঘরে আড়ার সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে সে আত্মহত্যা করে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ধলইতলা গ্রামে। সে ইতনা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

নিহতের চাচা চান্দু শেখ জানান, প্রতিবেশি গোলাম মুন্সির ছেলে সৌদি প্রবাসী আব্দুল হাকিম মুন্সির (২৪) সঙ্গে স্কুল পড়ুয়া ওই মেয়েটির প্রেমের সম্পর্ক হয়। প্রায় এক মাস আগে হাকিম সৌদি আরবে যায়। হাকিম দেশে থাকতে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে মেয়েটির সাথে আপত্তিকর বেশকিছু সম্পর্কের ছবি তোলে। সেই ছবিগুলো গত মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুকে) ছেড়ে দেয়।

তিনি বলেন, এসব ছবি স্থানীয় লোকজন দেখতে পায়। এরপর নানা মানুষ নানা কথা বলতে থাকে। এ ঘটনায় রাগে ক্ষোভে সে আত্মহত্যা করে। আত্মহত্যা ঘটনা শুনে ছেলের পরিবারে লোকজন পালিয়েছে বলেও জানান তিনি।

মেয়ের মা জানান, সকালে ঘরের ঝুলন্ত অবস্থায় আটটার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এরপর পাশেই টেবিলের ওপর মা’কে উদ্দেশ্যে লেখা একটি চিঠিটি পাওয়া যায়।

চিঠিতে সে লিখেছে, ‘মা, নানান মানুষ তোমাকে নানান কথা বলছে। আমার একটি ভুলের জন্য তোমাকে অনেক কষ্ট সহ্য করতে হচ্ছে। এই কষ্টটা আর আমি নিতে পারছি না। তাই আমি দুনিয়া ছেড়ে চলে যাচ্ছি। আমাকে তুমি ক্ষমা করে দিও মা।’

লোহাগড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, সদর হাসপাতালে নিহতের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে তার পরিবারের কাছে হস্থান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় তথ্য প্রযক্তি আইন (আইসিটি অ্যাক্ট) পর্নোগ্রাফি আইন ও আত্মহত্যা প্ররোচণায় অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here