করোনা আতঙ্কের মধ্যেও রমরমা মাদক বাণিজ্য

নিজস্ব প্রতিনিধিঃকরোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে উঠেছে। সীমিত করা হয়েছে মানুষের চলাচল। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে সক্রিয় মাদককারবাবিরা। ট্রাক, প্রাইভেটকারে অভিনব পদ্ধতিতে চলছিলো মাদক ব্যবসা। রোববার দুপুরে রাজধানীর পান্থপথ এবং ধানমন্ডি ২৭ নম্বরে পৃথক অভিযানে চার মাদককারবাবিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এরপরই বিষয়টি নজরে আসে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

র‌্যাব-২ এর কোম্পানি কমান্ডার এসপি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ফারুকী বলেন, আমাদের কাছে খবর ছিলো করোনা প্রাদুর্ভাবের সুযোগ কাজে লাগিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছে মাদক ব্যবসায়ীরা। সীমান্ত এলাকা থেকে ফেনসিডিলের একটি চালান রাজধানীতে আসছে। এমন খবরে পান্থপথে চেকপোস্ট বসানো হয়। এসময় একটি পিকআপ থামিয়ে তার চালক ও সহযোগীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তারা পিকআপের গ্যাসের সিলিন্ডারে ফেনসিডিল রাখার কথা স্বীকার করে। পরে সেটি ভেঙে ৪৪৩ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। তারা এই ফেনসিডিল জয়পুরহাট থেকে এনে রাজারবাগ এলাকায় এক মাদক ব্যবসায়ীর কাছে পৌঁছে দিচ্ছিলো।

এ ঘটনায় গ্রেপ্তার দুজন হলেন, মোহাম্মদ বাচ্চু ও মাহবুব আলম। এই দুইজন বিভিন্ন জেলা থেকে কাঁচামাল এনে কারওয়ানবাজারে পৌঁছে দিত।

এরপর ধানমন্ডি ২৭ নম্বরের নন্দন মেগাশপের সামনে আরেকটি অভিযান চালায় এলিট ফোর্সের সদস্যরা। এসময় একটি প্রাইভেটকার থামিয়ে চালককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। তখন সে ইয়াবা থাকার কথা স্বীকার করে। চালকের সিটের পাশের দরজায় বিশেষভাবে লুকিয়ে আনা দুই হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করেন র‌্যাব সদস্যরা। এছাড়া নগদ সাড়ে ১১ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। আটক করা হয় দুইজনকে। তারা হলেন, শাহবুল ইসলাম ও তার বিয়াই মোহাম্মদ রতন।

র‌্যাব জানায়, এই দুই কারবারি পাবনা থেকে কক্সবাজার গিয়েছিল ইয়াবার চালান আনতে। গতকাল পাবনা থেকে রওনা হয়ে কক্সবাজার পৌঁছায়। এরপর আজ ইযাবার চালান নিয়ে রওনা হয়েছিল পাবনার উদ্দেশ্য। পথভুলে ধানমন্ডিতে ঢুকে পড়লে আমাদের চেকপোস্টে ধরা পড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here