ছিন্নমূলে হাসি ফোটাতে পুলিশের উদ্যোগ

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও যখন করোনায় আক্রান্ত, তখন ছিন্নমূল মানুষগুলোই সবচেয়ে বড় বিপদে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশ অঘোষিত লকডাউনে থাকায় দিন মজুরি এসব মানুষরা জানে না কাল তারা বাজার করে খাবার খেতে পারবে কিনা। ঠিক এমন পরিস্থিতিতে তাদের পাশে এসে দাঁড়ালেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কয়েকজন সদস্য।
তারা নিজেদের বেতনের টাকা থেকে চাঁদা উঠিয়ে গরিব মানুষদের বাজার করে দিলেন এদেরই একজন কলাবাগান থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেন। তিনি  বলেন, ১০ দিন সরকারি ছুটি ঘোষণার পর থেকেই দেখছি রাজধানী ঢাকা প্রায় ফাঁকা। এমন রাজধানী আগে কখনো দেখিনি। আর এমন ফাঁকাতে সবচেয়ে বেশি অসুবিধায় পড়েছেন দিন এনে দিন খাওয়া মানুষজন।
কেননা তাদের আয়ের উৎস প্রায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তাই আমরা কয়েকজন এসআই মিলে সিদ্ধান্ত নিলাম তাদের জন্য কিছু করবো। ব্যাপারটি কয়েকজন সিনিয়রকে জানালে তারাও আমাদের সাথে অংশগ্রহন করেন।
এরমধ্যে ডিএমপির রমনা জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) আব্দুল্লাহ হেল কাফি, নিউ মার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) আবুল হাসান, ধানমন্ডি জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) হাসিন উজ জামান, ধানমন্ডি থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. আশফাক রাজিব হাসান আমাদেরকে সহযোগিতা করেন।   
কলাবাগান থানার এসআই জাকির হোসেনসহ ধানমন্ডি থানার এসআই মো. নুর উদ্দিন, এসআই মো. খালিদ ইসলাম, এসআই আশিকুর রহমান, এসআই শাহ মিরাজ এই উদ্যোগ গ্রহন করেন।
এসআই জাকির আরো জানান, আমরা মোট ৩৫ হাজার টাকারি ১১০ প্যাকেট মুদি সামগ্রী বিতরণ করার জন্য প্রস্তুত করেছি। এরমধ্যে বৃহস্পতিবার রাতে ৬০ প্যাকেট বিতরণ করা হয়েছে। আজ রাতে বাকি ৫০ প্যাকেট বিতরণ করা হবে।
প্যাকেটে কি আইটেম ছিলো এমন প্রশ্নের জবাবে জাকির বলেন, প্রতিটি প্যাকেটে তিন কেজি চাল, এক কেজি আলু, আধা লিটার তেল, আধা কেজি ডাল, আধা কেজি পেঁয়াজ, একটি ডেটল সাবানসহ এক জোড়া হ্যান্ড গ্লাবস ছিলো।
এই ক্ষুদ্র কার্যক্রমে আমরা খুব ভালো সাড়া পাচ্ছি। আগামীতেও আরো বড় পরিসরে আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান কলাবাগান থানার এ এসআই।
পরবর্তী কার্যক্রম কবে চালাবেন, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যেহেতু চার তারিখ পর্যন্ত ছুটি আছে, এরপরও কি হবে তা বলা যাচ্ছে না, আমরা চার তারিখের আগেই অসহায় মানুষের সহযোগিতায় আবারো এগিয়ে যাবো।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here