বিভিন্ন ব্যাংকের এটিএম থেকে টাকা তুলতে চার্জ লাগবে না

নিজস্ব প্রতিনিধিঃকরোনাভাইরাস (কোভিড-১৯ ) প্রতিরোধের এ সময় কয়েকটি ব্যাংক কার্ড ব্যবহারকারীদের জন্য বিশেষ সুবিধা দিচ্ছে। যেকোনো ব্যাংকের এটিএম কার্ড ব্যবহারকারীরা বিনা খরচে এখন এ সব ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা উঠাতে পারবেন। এছাড়াও এসব ব্যাংকের কার্ড হোল্ডারদের অন্য ব্যাংকের এটিএম (অটোমেটেড টেলারিং মেশিন) বুথ ব্যবহার করলেও কোনো চার্জ দিতে হবে না। ব্যাংকগুলো হল- ইউসিবিএল, এবি ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক ও এনআরবি ব্যাংক।

শনিবার ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড ও আইএফআইসি ব্যাংক থেকে গ্রাহকদের কাছে ক্ষুদে বার্তায় এ তথ্য জানানো হয়। এবি ব্যাংক ও সিটি ব্যাংক এ বিষয়ে বিজ্ঞাপনও দিয়েছে।

ক্ষুদে বার্তায় বলা হয়েছে, যেকোনো ব্যাংকের এটিএম বুথে ইউসিবির ডেবিট কার্ড কোনো প্রকার চার্জ ছাড়াই ব্যবহার করা যাবে। এছাড়া ইউসিবির শাখায় চার্জ ছাড়াই অনলাইন সেবা প্রদান করা হবে।

একই রকম ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েছে আইএফআইসি ব্যাংকও। এছাড়াও ঢাকা ব্যাংক ও এনআরবি ব্যাংক ই-মেইল ও মেসেজের মাধ্যমে গ্রাহদের বিষয়টি জানিয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ম  অনুযায়ী, এক ব্যাংকের কার্ড দিয়ে অন্য ব্যাংকের এটিএম বুথ ব্যবহার করে টাকা তুললে প্রতিবার লেনদেনের জন্য গ্রাহককে (এটিএম কার্ডধারী) ভ্যাটসহ সর্বোচ্চ ১৫ টাকা করে দিতে হয়। আর পাঁচ টাকা দেয় কার্ড ইস্যুকারী ব্যাংক। আর গ্রাহক যদি তার ব্যাংক হিসাবের সংক্ষিপ্ত বিবরণী বা স্থিতি নিতে চান তার জন্য ভ্যাটসহ অতিরিক্ত পাঁচ টাকা চার্জ কাটা হয়।

অন্যদিকে এবি ব্যাংকের প্রকাশিত বিজ্ঞাপনে বলা হয়, করোনাভাইরাসের মাহামারি পরিস্থিতিতে গ্রাহক সেবায় এবি ব্যাংকের বিশেষ উদ্যোগ এটি। দেশব্যাপী সব ব্যাংকের নেটওয়ার্কে এটিএম চার্জ ফ্রি করা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় গ্রাহকদের সুবিধার্থে যেকোনো ব্যাংকের টাকা উত্তোলনের জন্য কোনো চার্জ কাটা হবে না। এছাড়াও গ্রাহকদের নিরাপত্তার স্বার্থে এবি ব্যাংক ১ লাখ বা তার উপরের অংকের টাকা জমার ক্ষেত্রে গ্রাহকের অফিস বা বাসা থেকে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় সে টাকা সংগ্রহ করবে ব্যাংক।

এদিকে, অনলাইনে লেনদেন উৎসাহিত করতে বিশেষ ছাড় ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখন মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস (এমএফএস) বা মোবাইল ব্যাংকিংয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি ও ওষুধ ক্রয়ে কোনো ধরনের চার্জ না কাটার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। ব্যক্তি থেকে ব্যক্তি (পি-টু-পি) লেনদেনে (যেকোনো চ্যানেলে) এ নির্দেশনা মানতে হবে। একই সঙ্গে লেনদেন সীমা ৭৫ হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে দুই লাখ করা হয়েছে। এছাড়া দৈনিক এক হাজার টাকা ক্যাশ আউট সম্পূর্ণ চার্জ বিহীন রাখতে বলা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here