বাউফলে করোনা আতঙ্কঃ প্রভাব পড়েনি জনমনে

 

এম মনিরুজ্জামান হিরোন. বাউফল:পটুয়াখালীর বাউফলে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক প্রভাব পরেনি জনমনে। এখন অনেকেই অসতর্কতার সাথে চলাফেরা করছেন। বিভিন্ন চায়ের দোকানে জমিয়ে আড্ডা দিচ্ছেন শহর থেকে গ্রামে আশা বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। সরকার করোনা ভাইরাস নিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করলেও গ্রাম অঞ্চলের মানুষের মধ্যে রয়েছে অসেচতনা।
মোঃ মহিউদ্দিনোমান (২৫) নামের এক যুবকের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপসর্গ শনাক্ত করতে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকলে কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। ইতিমধ্যে ১জন ডাক্তার ১জন এ্যাম্বুলেন্স চালক ও বিদেশ থেকে আসা ২৭ ব্যক্তিকে হোমকোয়ারেন্টাইনে নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। পাশাপাশি কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাড়ীগুলো চিনহিত করতে লাল পতাকা সহ স্থানীয়দের তাদের এড়িয়ে চলার জন্য শতর্ক করে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় গোটা উপজেলায় ছড়িয়ে পড়েছে করোনা আতঙ্ক। ৫০ শয্যা বিশিষ্ট উপজেলা হাসপাতালটিও এখন রোগী শুণ্য। ভয়ে চিকিৎস্যা সেবা নিতে আসছেননা অনেকে। আবার কঠোর নির্দেশনা থাকা স্বত্বেও মানছেনা কিছু মানুষ। শহরের প্রাণ কেন্দ্রে বড় বড় প্লাজা বন্ধ রাখা হলেও অনেকেই আবার কিছু দোকান খোলা রেখে বেচা-কেনা করছেন। ঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করছে অনেকেই। উপজেলায় সকল ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
দেশের বিভিন্ন জেলা উপজেলার মানুষ কে প্রশাসন যে ভাব সতর্ককতামূলক ব্যবস্থা নিয়ে নিরাপদে যেতে বাধ্য করেছে সে তুলনায় বাউফলের চিত্র ভিন্ন। অসচেতন মানুষগুলোর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা না নিলে পুরো উপজেলাই করোনার ছোবলে গ্রাস হতে পারে বলে মনে করেছেন এ উপজেলার সচেতন মহল।
এম মনিরুজ্জামান হিরোন. বাউফল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here