পিতার মাথা ফাটাল প্রভাষক পুত্র!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি: ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জে বসত ভিটার জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ষাটোর্ধ পিতার মাথা ফাটাল প্রভাষক ছেলে সোহেল রানা। আর রক্তাক্ত পিতাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করাল বড় ছেলে স্কুল শিক্ষক হানিফ।

সোমবার দুপুরে পৌর শহরের জগথা বিলডাংগী মহল্লায় এমনই এক হৃদয় বিদারক ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় প্রভাষক ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন স্কুল শিক্ষক ঐ বড় ভাই। সোহেল রানা উপজেলার লোহাগাড়া ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক আর হানিফ সহকারি শিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন রঘুনাথপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে।

লিখিত অভিযোগ এবং স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, বসত ভিটার ৪ শতক জমি নিয়ে পৌর শহরের জগথা বিলডাংগী মহল্লার নজরুল ইসলাম ও তার বড় ছেলে হানিফের সাথে বিরোধ দেখা দেয় ছোট ছেলে প্রভাষক সোহেল রানার। এর জেরে সোমবার দুপুরে বাড়ির অঙ্গিনায় ইট দিয়ে পিতা নজরুলের মাথায় আঘাত করেন সোহেল রানা। এতে পিতার মাথা ফেটে রক্ত ঝড়তে থাকে।

পিতার এ অবস্থা দেখে বড় ছেলে হানিফ তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরতরা মাথার ফেটে যাওয়া স্থানে সেলাই দিলে রক্ত ঝড়া বন্ধ হয়। এখন তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীরন রয়েছেন। হাসপাতালের জরুরি বিভাগে কর্মরত উপ-সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার সারা হেমবরম বলেন, তার মাথায় ৪ টা সেলাই দেওয়া হয়েছে। তিনি এখন শংকামুক্ত আছেন।

পীরগঞ্জ থানার ওসি প্রদীপ কুমার রায় বলেন, এটি পারিবারিক মারামারি। তাদের আগে চিকিৎসা নিতে বলেছি। পরে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here