শিশুর তোতলামো সমস্যায় করণীয়

নিউজ ডেস্ক :তোতলামো হচ্ছে কথা বলার জড়তাজনিত সমস্যা। এর মানে হচ্ছে, একই বাক্য বা শব্দ বারবার বলা, শব্দের অস্পষ্ট উচ্চারণ, কথা বলার সময় কোনো শব্দ বা উচ্চারণ ছেড়ে যাওয়া বা এমনভাবে কথা বলা, যাতে শব্দগুলো বোঝাই যায় না।

তোতলামো সমস্যা মূলত পরিবেশ ও জিনগত কারণে হয়ে থাকে। স্বরযন্ত্র বা অন্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গের অসুখ কিংবা তার গঠনগত কোনো সমস্যা দায়ী নয়। শিশুরা যে বয়সে কথা শেখে, সেই সময়ে কথা বলতে খানিকটা অসুবিধা হতেই পারে।

একই ধ্বনি বারবার উচ্চারণ করতে করতেই একসময় তার কথা স্পষ্ট হয়ে উঠবে, এটা তোতলামি ভাবার কোনো কারণ নেই, চিকিৎসারও প্রয়োজন নেই।

তবে কথা শেখার পর যদি শিশু তোতলায়, তাহলে কিছু বিষয় খেয়াল করুন। বাড়িতে, স্কুলে বা শিশুর ঘনিষ্ঠদের মধ্যে এমন কেউ আছেন কি না, যিনি তোতলামির সমস্যায় ভুগছেন। তাহলে শিশুর কথার মাঝেও তোতলামি চলে আসতে পারে।

শিশু যদি তোতলায় সে ক্ষেত্রে করণীয় :

শিশু যখন তোতলায় তখন তাকে তোতলানোর বিষয়টি ধরিয়ে দেয়া যাবে না।

তোতলামোর সময় তাকে থামতে বলা যাবে না কিংবা একবার উচ্চারণ করা কথার পুনরাবৃত্তি করার জন্য চাপ দেয়া যাবে না।

ধৈর্য ধরে তার সম্পূর্ণ বাক্য শুনুন এবং তার সঙ্গে আরো বেশি কথা বলুন।

শিশু বয়সের পরেও যিনি তোতলামোর সমস্যায় ভুগছেন, তাঁকে নিজের মতো করে পড়তে এবং শুনতে দিতে হবে।

যাদের এ সমস্যা প্রাপ্ত বয়সেও আছে তারা নিজের কথা রেকর্ড করে রাখতে পারেন। রেকর্ড শুনে সঠিকভাবে কথা বলার চেষ্টা করবেন। এ ছাড়া স্পিচ থেরাপি নেয়া যেতে পারে। তোতলামি সারানোর কোনো কার্যকর ওষুধ নেই। তোতলামি নিয়ে লজ্জার কিছু নেই। আত্মবিশ্বাসী হোন। কথা বলতে গিয়ে আটকে গেলেও কথা থামাবেন না। পৃথিবীতে অনেকেই এ সমস্যা থাকা সত্ত্বেও সাফল্য পেয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here