বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার মডেল ওসিকে খুলনায় বদলী

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ‘বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানায় অফিসার ইনচার্জ(ওসি) হিসেবে ইতিপূর্বে যারা ছিলেন তাদের মধ্যে কেউ কেউ যেমন ছিলেন আলোচিত আবার কেউ কেউ ঠিক তেমন ভাবেই সমালোচিত হিসেবে এ নগরীতে দুর্নাম কুড়িয়েছেন। ২০১৬ সালের ১১ জুন দুপুরে বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার ওসি হিসেবে যোগদান করেন চৌকষ পুলিশ কর্তা শাহ আওলাদ হোসেন মামুন। বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানা থেকে ওসি শাহেদুজ্জামান বিদায় হওয়ার পর কোতয়ালীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি মারাতœক ভাবে ভেঙ্গে পড়ে। ওসি আওলাদ হোসেন মামুন যোগদানের কারনে পুনরায় কোতয়ালী থানা এলাকার আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয় বলে সচেতন মহল দাবি করেন। মাত্র ২ বছর ১৮দিনে তিনি মহানগরীর অপরাধ প্রবনতা কমিয়ে এনেছেন। গোটা কোতয়ালী থানা এলাকাকে নিরাপত্তার চাদরে ডেকে ফেলেছেন। কোতয়ালী মডেল থানাধীন নিজ এলাকার ওর্য়াডসমুহের মধ্যে স্থানীয় গন্যমান্যদের নিয়ে কমিউনিটি পুলিশের কমিটি গঠন ও তাদের নিয়ে বিভিন্ন সভা সমাবেশের আয়োজন করে নগর জুড়ে প্রশংসা কুড়ান ওসি আওলাদ। তার এই ২বছর মাসের সময়কালে নগরীতে যে কয়টি হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে তার ক্লু খুব দ্রুতই খুজে বের করে প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় আনতে ওসি আওলাদের নেতৃত্ব প্রশংসা কুড়িয়েছে সচেতন মহলে। নগরীর চুরি-ছিনতাই দমনে রাত্রবেলা টহল পুলিশের কার্যক্রম বৃদ্ধি ওসি আওলাদের ফসল।সবচেয়ে যে কারনে তাকে মডেল ওসি হিসেবে অ্যাখা দিয়েছে নগরীর মানুষ সেটি হল ওসি আওলাদ যোগদানের পর কোতয়ালী থানাকে ঢেলে সাজিয়েছেন। থানা এলাকায় সিসি ক্যামেরা স্থাপন, নতুন গ্যারেজ, ও দৃষ্টিনন্দন ফুলের বাগান তৈরি করে তিনি থানার চেহারাই পাল্টে দিয়েছেন। তবে মহানগরীতে পূর্বের যে সকল মাদক ব্যাবসায়ী, ভুমির দালাল, ও কথিত পুলিশের সোর্স পরিচয় দেয়া দালালদের অপকর্ম দমন করেছেন ওসি আওলাদ। পরিশেষে বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ্ মো. আওলাদ হোসেন মামুনকে অন্যত্র বদলী করা হয়েছে। এই বদলীর কারনে নগরীর সাধারন মানুষ আগের মত পুলিশি ভরসায় ঘুমাতে পারবে না। এছাড়াও আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে থাকা নিয়ে শংশয় রয়েছে নগরীর কোতয়ালী মডেল থানার বাসিন্দারা। এদিকে কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ্ মো. আওলাদ হোসেন মামুনকে অন্যত্র বদলী করার সংক্রান্ত একটি আদেশ গত বুধবার (২৭ জুন) বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ সদর দফতরে এসেছে। ওই আদেশে তাকে খুলনা রেঞ্জে বদলী করা হয়েছে বলে উল্লেখ রয়েছে। এই বিষয়টি বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের মুখপাত্র সহকারি কমিশনার (এসি) নাসির উদ্দিন মল্লিক বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) বিকেলে নিশ্চিত করেছেন। পরবর্তীতে বরিশাল কোতয়ালি থানায় নতুন ওসি হিসেবে কে আসছেন সেই বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে গুঞ্জন রয়েছে বরিশাল মেট্রোপলিটন কাউনিয়া থানার বর্তমান ওসি নুরুল ইসলামকে সেখান থেকে সরিয়ে এই থানার দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে। আদেশের বরাত দিয়ে ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন- আগামী ৫ জুলাইয়ের আগে ওসি আওলাদকে খুলনা রেঞ্জে যোগদান করতে বলা হয়েছে। এদিকে ওসি আওলাদ তিনি এর আগে রাজবাড়ি সদর থানার ওসি হিসেবে দায়িত্ব কর্মরত ছিলেন। ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার সন্তান শাহ আওলাদ হোসেন মামুন ২০০১ সালে সাব-ইনেসপেক্টর হিসেবে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন। চাকুরী জীবনের প্রথমে খুলনা জেলা পুলিশে কর্মরত ছিলেন। ২০১৩ সালে খুলনা জেলার ডুমুরিয়া থানার ওসি, ২০১৪ সালে মাগুরা জেলার শ্রীপুর থানার ওসি হিসাবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন। তখনই তিনি অসীম সাহসিকতা ও পুলিশী সেবার জন্য রাস্ট্রের সম্মানজনক পদক পিপিএম পান। শ্রীপুরে কর্মরত থাকা অবস্থায় ওসি আওলাদ হোসেন মামুন কমিউনিটি পুলিশকে ঢেলে সাজিয়ে মাগুরা জেলার মধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। স্থানীয় জনগনের সাথে পুলিশের সেতু বন্ধনে তিনি কমিউনিটি পুলিশকে কাজে লাগিয়ে অপরাধ কমিয়ে আনতে সক্ষম হন। মাগুরার শ্রিপুরে তিনি অপরাধ দমন নয়, অপরাধ প্রবনতা কমিয়ে আনতে নিরালস পরিশ্রম করেছেন। গত বছর সাহসী এ পুলিশ কর্মকর্তা খুলনা থেকে বদলীয় হয়ে ঢাকা রেঞ্জ ও সেখান থেকে বরিশাল রেঞ্জে এসে যোগদান করেন। পরে আবার ঢাকা রেঞ্জে ফিরে গিয়ে রাজবাড়ি সদর থানার ওসি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহন করেন। গত ইউপি নির্বাচনে শাহ মোঃ আওলাদ হোসেন-পিপিএম রাজবাড়ীতে নিজের দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে আগে ভাগেই সন্ত্রাসী তৎপরতা বন্ধ করতে সক্ষম হন। তার কারনে রাজবাড়ী সদর উপজেলায় সুষ্ট ও অবাধ ইউপি নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এমন একজন চৌকশ ওসিকে দীর্ঘ দিন পর পায় কোতয়ালী থানার মানুষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here