যে কারণে ছ’মাসের কারাদণ্ড হলো ভারতীয় অভিনেতার

বিনোদন ডেস্ক:চেক বাউন্স হওয়ায় সিনেমা ও টিভি সিরিয়ালের অভিনেতা বিশ্বজিৎ চক্রবর্তীকে শুক্রবার ছ’মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন আলিপুরের মুখ্য বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট শুভদীপ চৌধুরী। এ বিষয়ে অবশ্য কোনো মন্তব্য করতে চাননি ওই অভিনেতা। তিনি জানিয়েছেন যা বলার তা তার আইনজীবী জানাবেন।

এ বিষয়ে বিশ্বজিতের আইনজীবী সৈকত দত্ত মজুমদার জানান, নিয়ম অনুযায়ী কোনো অপরাধে কারও দুই বছর বা তার কম সাজা হলে তৎক্ষণাৎ আদালত তাকে জামিনে মুক্তি দেন। এ ক্ষেত্রেও তার মক্কেল জামিন পেয়েছেন।

যে ঘটনাটির জন্য এ অভিনেতার কারাদণ্ড হয় তা জানান সৈকতবাবু । তিনি জানান, ধর্মতলার একটি সংস্থার কাছ থেকে ২০১৫ সালে ওই অভিনেতা ব্যক্তিগত কারণে দশ লক্ষ টাকা ধার নেন। সংস্থার কর্তা তথা ব্যবসায়ী দর্শন খামানির অভিযোগ, বিশ্বজিৎবাবু ধার শোধ করতে গিয়ে তাঁকে যে ক’টি চেক দেন, সেগুলি ব্যাঙ্কে জমা দেওয়ার পরে বাউন্স করে। অর্থাৎ, ওই অভিনেতার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পর্যাপ্ত টাকা ছিল না।

রায়ে বলা হয়, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী যে টাকা ধার নিয়েছিলেন, তা ফেরত দেয়ার পাশাপাশি অতিরিক্ত ৩০ শতাংশ দিতে হবে। না দিলে আরও ছয় মাসের কারাবাসের নির্দেশ দেবেন আদালত।

এ ঘটনায় ২০১৭ সালে ওই অভিনেতার বিরুদ্ধে আলিপুর আদালতে মামলা করেন সংস্থার কর্মকর্তা দর্শন খামানি। দুই বছর মামলা চলার পর কয়েকদিন আগে শুনানি শেষ হয়। শুক্রবার রায় দেন বিচারক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here