সড়কে ঝরলো ১১ প্রাণ, আহত ৭০

নিউজ ডেস্ক:রাজধানীসহ দেশের ৫ জেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ১১ জনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত আরও ৭০ জন। বৃহস্পতিবার (২১ জুন) ঢাকা, খুলনা, ভোলা, কিশোরগঞ্জ ও চুয়াডাঙ্গা জেলায় এসব হতাহতের ঘটনা ঘটে।

প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদন:
খুলনা: খুলনার ডুমুরিয়া উপজেলায় ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষের পর একটি বাস খাদে পড়ে ৫ যাত্রী নিহত হয়েছেন। দুপুর ১টার দিকে ডুমুরিয়া উপজেলার বরাটিয়া এলাকায় খুলনা-সাতক্ষীরা সড়কে ট্রাকের সঙ্গে সংঘর্ষের পর একটি বাস খাদে পড়ে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় আহত হন আরও অন্তত ১৫ জন।

ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিল হোসেন জানান, নিহত পাঁচজনের মধ্যে দুজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- খুলনার কয়রা উপজেলার উত্তর কেওড়া গ্রামের মোস্তফা কাজী (৪৭) ও শহিদুর রহমান (৪০)। তাদের লাশ চুকনগর পুলিশ ফাঁড়িতে রয়েছে।

ওসি হাবিল হোসেন জানান, যাত্রীবাহী বাসটি খুলনার কয়রা উপজেলা থেকে সদরে যাচ্ছিল। আর ট্রাকটি চুকনগর যাচ্ছিল। পথে বরাটিয়া এলাকায় খুলনা-সাতক্ষীরা সড়কে উভয়ের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে হতাহতের ঘটনা ঘটে। এদের অধিকাংশ মাটিকাটার শ্রমিক হিসেবে কাজে যাচ্ছিলেন। আহতদের খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ স্থানীয় বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

ভোলা: ভোলা-চরফ্যাশন সড়কে তেলের ট্যাঙ্কারের ধাক্কায় শিশুসহ দুই বোরাকযাত্রী নিহত হ‌য়ে‌ছেন। এ সময় আহত হন আরো আট যাত্রী। সকালে চরফ্যাশন ফায়ার সার্ভিস অফিসসংলগ্ন সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে চরফ্যাশন থানার ওসি এনামুল হক জানিয়েছেন।

নিহতরা হ‌লেন- চরফ্যাশন উপ‌জেলার ওসমানগঞ্জ ইউনিয়‌নের আবদুর র‌হি‌মের ছে‌লে মনসুর আলী (৪৫) এবং আলীগঞ্জ ইউনিয়‌নের মো. মামু‌নের ছে‌লে সিয়াম (১২)। আহতরা হলেন শারমিন বেগম (২৬), মাসুদ (৩০), সেলিম (৪৫), সালমা (২৫), নূরজাহান (৩৫), ইরানি (৭), শাকিল (২০) ও শিশু বায়জিদ (২)।

তাদের মধ্যে শারমিন ও শিশু বায়জিদ ছাড়া সবাইকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল, ভোলা ও ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চরফ্যাশন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক হিলারী ইয়াসমিন।

চরফ্যাশন থানার ওসি এনামুল হক জানান, সকালে একটি বোরাক লালমোহন থেকে চরফ্যাশনের দিকে আসছিল। চরফ্যাশনের ফায়ার সার্ভিস অফিসসংলগ্ন সড়কে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি তে‌লের ট্যাঙ্করের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মনসুর আলী নামের এক যাত্রী নিহত ও ৯ জন আহত হন।

স্থানীয়রা আহত‌দের উদ্ধার ক‌রে চরফ্যাশন হাসপাতা‌লে নি‌লে সেখানে সিয়াম না‌মের এক শিশু‌কে কর্তব্যরত চি‌কিৎসক মৃত ঘোষণা ক‌রেন।

কিশোরগঞ্জ: জেলায় পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত ও ৩৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে জেলার করিমগঞ্জ উপজেলায় একটি যাত্রীবাহী বাস রাস্তার পাশের খাদে পড়ে বাসটির হেলপার নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১৫ জন। আহতদের মধ্যে অন্তত পাঁচজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

বৃহস্পাতিবার সকাল ৯টার দিকে করিমগঞ্জের দেহুন্দা ফেরিঘাট এলাকায় চামড়াবন্দর-করিমগঞ্জ সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত হেলপারের নাম হেলাল মিয়া (৩০)। তিনি ভোলা সদরের ইসমাঈল মিয়ার ছেলে বলে জানা গেছে। করিমগঞ্জ থানার ওসি মো. মুজিবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও যাত্রীদের সূত্রে জানা যায়, ক্যান্টনমেন্ট বাস সার্ভিস (প্রা.) লিমিটেডের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব ১১-৭৯২৭) বুধবার রাতে ঢাকা থেকে রিজার্ভ যাত্রী নিয়ে করিমগঞ্জ উপজেলার দেহুন্দা গ্রামে আসে। আজ সকালে বাসটি আবার রিজার্ভ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয়। বাসটি যাত্রা শুরুর কিছুক্ষণ পর সকাল ৯টার দিকে চামড়াবন্দর-করিমগঞ্জ সড়কের দেহুন্দা ফেরিঘাট এলাকায় রাস্তার পাড় ভেঙে পাশের খাদে পড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাসের হেলপার হেলাল মিয়ার মৃত্যু হয়।

এছাড়া আহত অন্তত ১৫ যাত্রীকে করিমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে আশঙ্কজানক অবস্থায় পাঁচজনকে কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

একই সময়ে জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলায় পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত ও ২০ জন আহত হয়েছে। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাকুন্দিয়া-মির্জাপুর সড়কের উপজেলার মরুরা এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত জরিনা খাতুন (৪৫) পাশের হোসেনপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের আবদুস সাত্তারের স্ত্রী।

পাকুন্দিয়া থানার ওসি আজহারুল ইসলাম সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও যাত্রীদের সূত্রে জানা যায়, ময়মনসিংহের নান্দাইল থেকে ছেড়ে আসা একটি পিকআপ (ঢাকা মেট্রো-ন ১৭-৬৯৫১) ২০ জনের মতো যাত্রী নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিল। পাকুন্দিয়া পৌর এলাকার মরুরা এলাকায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা কিশোরগঞ্জগামী অনন্যা পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৪৫৬৫) একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে পিকআপটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

এতে পিকআপটি দুমড়ে-মুচড়ে গিয়ে যাত্রীরা হতাহত হয়। এতে ঘটনাস্থলেই জরিনা খাতুনের মৃত্যু হয়। এ ছাড়া নিহত জরিনা খাতুনের স্বামী আবদুস সাত্তার ও মেয়ে সীমা আক্তারসহ আরো অন্তত ২০ জন পিকআপ যাত্রীর সবাই আহত হন। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

আহতদের পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

চুয়াডাঙ্গা: জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার জোড়গাছায় আলমসাধুর ধাক্কায় রফিকুজ্জামান টুটুল (৬০) নামের এক বাইসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। সকালে উপজেলার নাগদাহ ইউনিয়নের জোড়গাছায় ওই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত রফিকুজ্জামানের বাড়ি একই উপজেলার আঠারোখাদা গ্রামে।

পুলিশ জানায়, রফিকুজ্জামান সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বাইসাইকেল নিয়ে জোড়গাছা গ্রামের হাজিপাড়ায় পৌঁছালে আলমসাধু পেছন থেকে তাঁকে ধাক্কা দেয়। আহত রফিকুজ্জামানকে সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে দুপুর ১২টায় জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শিরিন জেবীন তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঢাকা: রাজধানীর রায়েরবাগে পদচারী সেতুর নিচে পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় মানিক (২২) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। তিনি বাসচালকের সহকারী হিসেবে কাজ করতেন।

যাত্রাবাড়ী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল কাদির জানান, ভোরে পদচারী সেতুর নিচে রাস্তা পারাপারের সময় পিকআপের ধাক্কায় মানিক আহত হন। দ্রুত তাঁকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here