বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩, ০৩:১১ অপরাহ্ন

ইংল্যান্ড ৪৮১, অষ্ট্রেলিয়া ২৩৯

ক্রাইম ফোকাস ডেস্ক :
  • আপডেট সময় বুধবার, ২০ জুন, ২০১৮
  • ১২১ বার পড়া হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক :ইনিংসে ৪৮১ রান। টেস্টে নয়, সীমিত ওভারের ম্যাচে। সেটিও আবার হল্যান্ড কিংবা স্কটল্যান্ডের মতো দলের বিরুদ্ধে নয়। কয়েকবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অষ্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে। নি:সন্দেহে এটি বিশ্বরেকর্ড।
জনি বেয়ারস্টো ও অ্যালেক্স হেলসের সেঞ্চুরিতে গত মঙ্গলবার রাতে রানের পাহাড় গড়ে ইংল্যান্ড। অধিনায়ক এউইন মরগানও করেন দেশের দ্রুততম ফিফটি। মঙ্গলবার রেকর্ডসমৃদ্ধ এই তৃতীয় ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াকে ২৪২ রানে হারিয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড।
বেয়ারস্টো ও হেলসের ষষ্ঠ সেঞ্চুরিতে ৬উইকেটে ৪৮১ রান করে ইংল্যান্ড। এর অর্ধেক রানও করতে পারেনি অজিরা। মাত্র ৩৭ ওভারে ২৩৯ রানে গুটিয়ে যায় অষ্ট্রেলিয়ার ইনিংস হয়।
ছেলেদের ক্রিকেটে প্রথম দল হিসেবে ওয়ানডেতে এই দিন ৪৫০ ছাড়ানো রান করে ইংল্যান্ড। দুই বছর আগে নিজেদের গড়া বিশ্ব রেকর্ড ভেঙে দেয় তারা।
নটিংহ্যামের এই ট্রেন্ট ব্রিজেই ২০১৬ সালের ৩০ আগস্ট পাকিস্তানের বিপক্ষে ৪৪৪ রান করেছিল ইংল্যান্ড ৩ উইকেটে। এতোদিন সেটাই ছিল ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ দলীয় রানের রেকর্ড। মঙ্গলবার একই ভেন্যুতে নিজেদের রেকর্ড ভাঙল তারা। এবার তাদের প্রতিপক্ষ ছিল অস্ট্রেলিয়া।
অসিরা টস জিতে ফিল্ডিং নিয়েছিল। কিন্তু তাদের বোলাররা হয়েছে নাস্তানুবাদ। টানা দুই ম্যাচ জেতা ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যনরা পাত্তা দেননি তাদের। জেসন রয়ের সঙ্গে ১৫৯ রানের জুটি গড়েন বেয়ারস্টো। ৬১ বলে ৭ চার ও ৪ ছয়ে ৮২ রান করেন জেসন। তারপর হেলসকে নিয়ে বেয়ারস্টো অসহায় বানান অসি বোলারদের। ১৫১ রানের জুটি গড়েন দুজনে।
৯২ বলে ১৫ চার ও ৫ ছয়ে ১৩৯ রান আসে বেয়ারস্টোর ব্যাটে। সমান বল খেলে ১৬ চার ও ৫ ছয়ে ১৪৭ রান করেন ম্যাচসেরা হেলস। এউইন মরগানের সঙ্গে ১২৪ রানের জুটি গড়েন তিনি। ৩০ বলে ৩ চার ও ৬ ছয়ে ৬৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন মরগান। ২১ বলে ৬ চার ও ৩ ছয়ে হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি।
দুই বছর আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে আগের রেকর্ড গড়া ম্যাচেও ১৭১ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস খেলেছিলেন হেলস।
এঁদের সামনে অস্ট্রেলিয়ার বোলাররা একরকম অসহায় ছিল। ১০ ওভারে ৯২ রান খরচ করেছেন রিচার্ডসন, তিনি অবশ্য তিন উইকেট পেয়েছেন। এছাড়া মার্কাস স্টয়নিসের আট ওভারে ৮৫ এবং নয় ওভারে ১০০ রান দিয়ে উইকেটশূন্য ছিলেন পেসার অ্যান্ড্রু টাই।
রেকর্ড লক্ষ্যে নেমে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা চোখে পড়ার মতো কিছু করতে পারেননি মঈন আলী ও আদিল রশিদের স্পিন নৈপুণ্যে। দুই স্পিনার ৭ উইকেট নিজেদের মধ্যে ভাগাভাগি করে নেন। রশিদ ১০ ওভারে ৪৭ রান দিয়ে নেন ৪ উইকেট। মঈন ৩ উইকেট নেন ৫ ওভারে ২৮ রান দিয়ে।
অস্ট্রেলিয়ার ওপেনার ট্রাভিস হেড ৫১ রানের সেরা ইনিংস খেলেন। দ্বিতীয় সেরা ৪৪ রান আসে মার্কাস স্টোইনিসের ব্যাটে।
আগামী ২১ জুন চতুর্থ ম্যাচে মুখোমুখি হবে দুই দল।
সূত্র : ক্রিকইনফো।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর