লক্ষ্মীপুরে শতাধিক স্কুলভবন ঝুঁকিপূর্ণ

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি: জেলার পাঁচ উপজেলার মোট ১২৫টি স্কুলের হাজার হাজার শিক্ষার্থী বড় ধরনের দুর্ঘটনার ঝুঁকি মাথায় নিয়ে জরাজীর্ণ ভবনগুলোর শ্রেণিকক্ষে লেখাপড়া করছে। এতে আতঙ্কে রয়েছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

লক্ষ্মীপুর সদর, রায়পুর, রামগঞ্জ, রামগতি ও কমলনগরসহ পাঁচটি উপজেলায় রয়েছে ৭৩১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব জেলায় প্রায় শতাধিক বিদ্যালয় ঝূঁকিপূর্ণ হিসেবে ঘোষণা করেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস।

ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষিত এসব স্কুলের জরাজীর্ণ ভবনের দেয়াল ও ছাদের পলেস্তরা খসে পরে প্রায়ই ঘটছে ছোটখাটো দুর্ঘটনা।

ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়গুলোর মধ্যে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার পশ্চিম চররমনী মোহন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় একটি। এ বিদ্যালয়টিতে ১ম শ্রেণি থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত প্রায় এক হাজার শিক্ষার্থী রয়েছে। প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়েই শ্রেণিকক্ষে পাঠ নিচ্ছে শিক্ষার্থীরা। ইতিপূর্বে ভবনের দেয়াল ও দেয়ালের পলেস্তরা ধসে আহত হয়েছে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী।

সম্প্রতি দেয়ালের পলেস্তরা ধসে ৫ম শ্রেণির কয়েকজন ছাত্র আহত হয়।

ঝুঁকিপূর্ণ সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবস্থার একই চিত্র বলে জানিয়েছেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

অভিভাবকরা বলেন, আমরা সব সময় উদ্বেগ উৎকন্ঠা ও আতঙ্কের মধ্যে থাকি। ঝুঁকিপূর্ণ এসব বিদ্যালয় দ্রুত মেরামত না করলে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা অভিযোগ করে বলেন, বারবার জেলা শিক্ষা অফিসে জানানো হলেও এর কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। অগ্রাধিকার ভিত্তিহতে দ্রুত ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়গুলো মেরামত বা নতুন ভবন তৈরির দাবি জানান তারা।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আবু জাফর মোহাম্মদ সালেহা জানান, যেসব বিদ্যালয়ে পাঠদান দেয়া যাচ্ছে না, সেগুলো চিহ্ণিত করার জন্য একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ বিদ্যালয়ের নতুন ভবন করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে তালিকা পাঠানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, অনুমোদন পেলে ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here