বরিশালে বিএনপি নেতার মুজিব কোট নিয়ে তোলপাড়!

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ শোকাবহ আগস্টেই নতুন একটি বিতর্ক সৃষ্টি করলো বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগ। স্থানীয় এক বিএনপি নেতাকে মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মুজিব কোট পরিয়ে দেয়া নিয়ে তুমুল সমালোচনার ঝড় বইছে। বিশেষ করে এই ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে শুরু হয় তোলপাড়। কারণ শোকের মাসে বিএনপি নেতার শরীরে জাতির জনকের পরিহিত মুজিব কোট এই বিষয়টি কেউই ভাল ভাবে নিচ্ছে না। এমনকি দলের অভ্যন্তরেও বিষয়টি নিয়ে রয়েছে ক্ষোভ। অবশ্য এর কারণও সঙ্গত। মুজিব কোট পরিহিত ব্যক্তি নুরুল ইসলাম বিএনপি নেতা। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলরও তিনি। সম্প্রতি নির্বাচনেও তিনি জয়লাভ করেছেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ছবিতে দেখা গেছে-মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর হোসেন কোন একটি কক্ষে বসে বিএনপি নেতা নুরুল ইসলামের মুজিব কোট পরিয়ে দিচ্ছেন। এর পাশেই ছিলেন আরেক নেতা মহানগরের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম। এই ছবিটি আওয়ামী লীগ নেতাদের আস্থাভাজন বেশ কয়েকজন ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। তাদের মাধ্যমে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে ফেসবুকেই ক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি শোকাবহ আগস্টকে অবমাননার অভিযোগ এনেছেন বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে। বিশেষ করে কোন কোন ব্যক্তি বিশেষ ছবি সংবলিত পোস্ট করে সেখানে আওয়ামী লীগ নেতাদের বিষাদগার করেছেন।

মারিফ বাপ্পি নামের আওয়ামী লীগ ঘরনার এক আইনজীবী ফেসবুকে লিখেছেন- এ কার গায়ে আজ মুজিব কোট। ওর গায়ে মুজিব কোট? ছি: ছি: ছি:। নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল¬াহকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন- মুজিব কোটকে লজ্জার হাত হতে রক্ষা করুন। এছাড়াও অনেকে এই বিষয়টি নিয়ে ফেসবুক সরগরম করে তুলেছেন। এমতাবস্থায় খোঁজখবর নিয়ে নিশ্চিত হওয়া গেছে- গত দু’দিন আগে নবনির্বাচিত মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল¬াহ কাউন্সিলরদের নিয়ে গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর মাজারে শ্রদ্ধা জানাতে যান। বরিশাল থেকে রওয়ানা হওয়ার আগে বিএনপি নেতা নুরুল ইসলামকে মুজিব কোট পরিয়ে দেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর হোসেন।

এক্ষেত্রে বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলালের ভাষ্য হচ্ছে- বিএনপি নেতা কাউন্সিলর নুরুল ইসলাম আওয়ামী লীগে যোগদান করবেন। তবে শোকের মাসে নয় জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। তার পরেও মুজিব কোট বিএনপি নেতার শরীরে ওঠার বিষয়টি তাকেও ভাবিয়ে তুলেছে জানিয়ে বলেন- এই কোটের ব্যবহার একটা পর্যায়ে থাকা ভাল। কিন্তু কোন ধরনের বিধি-নিষেধ না থাকায় অনেকে ব্যবহার করে বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করার সাহস দেখাচ্ছেন। অথচ মুজিব কোট পরিহিত ব্যক্তি নুরুল ইসলাম দাবি করছেন তিনি বিএনপির রাজনীতিতে জড়িত নন। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অংশ নিয়ে জয়ী হয়েছেন। শোকের মাস আগস্ট গেলে তিনি আওয়ামী লীগে আনুষ্ঠানিক যোগদান করবেন বলে এ প্রতিবেদককে অবহিত করেন। কিন্তু বিএনপি বা অন্য কোন দলের রাজনীতিতে জড়িত না থাকলে আনুষ্ঠানিকতার গুরুত্ব কোথায় এমন প্রশ্নের তালগোল পাকিয়ে ফেলেন তিনি। পরিশেষে আলাপচারিতার মাঝে আকস্মিক ফোন সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেন তিনি।

এই বিষয়ে জানতে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর হোসেনের মুঠোফোনে একাধিকবার কল দিয়েও পাওয়া যায়নি।’’

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here