ডিবি অফিসে ২ ব্যক্তিকে আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ

মাদারীপুর প্রতিনিধি:মাদারীপুরের দুই যুবককে বাড়ি থেকে তুলে এনে ‘চুরি’র অপবাদে ডিবি অফিসে আটক রেখে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি পুলিশ) এক এসআইয়ের বিরুদ্ধে।

এব্যাপারে বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) সকালে ভুক্তভোগী পরিবার সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ করেন।

জানা গেছে, চুরি অভিযোগে বুধবার (১ আগস্ট) রাতে ঝাউদি ইউনিয়নের কালাইমারা এলাকার ডিবি পুলিশের এসআই মোবারকের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে মফিজুল বেপারী (৩৫) নামে এক ভ্যানচালককে আটক করে নিয়ে আসে মাদারীপুর ডিবি পুলিশ। সে মৃত রেজ্জেক বেপারীর ছেলে।

আটক কৃত ব্যক্তির পরিবারের দাবি, মিথ্যা অভিযোগে মফিজুল ও সহিদুলকে ফাঁসানো হয়েছে। তাছাড়া এসআই মোবারক মারধর, নির্যাতন ও ভয় দেখিয়ে চুরির ঘটনায় জড়িত আছে বলে স্বীকার করানোর চেষ্টা চালাচ্ছে।

এব্যাপারে আটক ও নির্যাতনের শিকার শহিদুলের স্ত্রী রুমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, বুধবার রাত ২টার দিকে এসআই মোবারক ও তার সঙ্গীয় র্ফোস নিয়ে ঘরে ঢুকে আমার স্বামী ও তার ভাইকে আটক করে নিয়ে যায়। কি কারণে আটক করা হয়েছে তা না বলে দুইজনকে নিয়ে যায়। বাড়ি থেকে কিছু দূর আসার পর থেকেই মারধর শুরু করে এবং ডিবি অফিসে নিয়ে রাতভর মারধর ও নির্যাতন চালিয়ে চুরি অপবাদ স্বীকার করতে বাধ্য করে।

তিনি বলেন, আমার স্বামী ও তার ভাইয়ের হাত, পাসহ,পুরো শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। জীবনের ভয়ে মিথ্যা চুরির অভিযোগ স্বীকার করেছে। আমার স্বামী ও তার ভাই কখনোই কোনো চুরির সঙ্গে জড়িত না, তাদেরকে ফাঁসানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে মাদারীপুর জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) অফিসার ইনচার্জ ফায়েকউজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, চুরির ঘটনায় সন্দেহজনক হওয়ায় তাদের আটক করা হয়েছে। তবে তাদের জোর করে স্বীকার করানো হয়েছে তা সত্য নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here