বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:২৭ অপরাহ্ন

পুরুষ দিবস: মান-অভিমান ছেলেদেরও হয়, কান্না পেলে কাঁদুন

ক্রাইম ফোকাস ডেস্ক :
  • আপডেট সময় শনিবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২২
  • ৫৬ বার পড়া হয়েছে

লাইফস্টাইল ডেস্ক:‘বিশ্বে যা কিছু মহান সৃষ্টি চির কল্যাণকর/ অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর’— জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের কবিতার এই দুটি লাইনই বোঝায় নারী আর পুরুষ দুই মিলেই সৃষ্টি করেছেন পৃথিবীর কল্যাণকর সবকিছু। নারী যে বিশেষ তা বোঝাতে নারী দিবস পালন করা হয়। পুরুষের জন্যও কিন্তু এমন একটি বিশেষ দিন রয়েছে। আজ ১৯ নভেম্বর, বিশ্ব পুরুষ দিবস।

নারীর পাশাপাশি পুরুষকে রোজকার জীবনে অনেক চাপ সামলে চলতে হয়। অফিসের কাজ, পরিবারের দায়িত্ব, সন্তানের সুন্দর ভবিষ্যৎ গড়া সব নিয়েই ভাবতে হয় তাদের। এসব সামলেও তারা হাসিমুখে থাকেন। আনন্দে রাখেন অন্যদের। আমাদের চারপাশে থাকা এমন পুরুষরাই সত্যিকারের পুরুষ।

পুরুষদের যেসব বিষয় মনে রাখা জরুরি

  • পুরুষ মানেই আপনাকে বাহিরের সব কাজে পারদর্শী হতেই হবে, তা না হলে আপনি পুরুষের তালিকায় পড়বেন না! এই ধরনের চিন্তা বদলানোর সময় চলে এসেছে। মনে রাখবেন ছেলে অথবা মেয়ে উভয়ই যে কোন কাজের বিষয়ে পারদর্শী হতে পারে।
  • কান্না পেলে কাঁদুন, তাতে মন হালকা হবে এবং মানসিক জটিলতা কমবে। কান্না পেলেও পুরুষরা কেনোভাবেই কান্নাকাটি করে না, এমন ধারণা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। আমরা মানুষ, আর কান্না পাওয়া মানুষের অন্য বিষয়ের মতন স্বাভাবিক।
  • আমরা ছোটবেলা থেকেই শুনে এসেছি যে পুরুষ মানেই তাকে খেলাধুলা পছন্দ করতে হবে। কিন্তু এ বিষয়টা একদমই সঠিক না। কোনো পুরুষের যদি ক্রিকেট-ফুটবলের মতো খেলাগুলো অপছন্দ হয়, তবে সেটা তার ব্যক্তিগত পছন্দ। এখনে ছেলে অথবা মেয়ের কোনো বিষয় নেই।
  • ছেলেরা যদি মন খারাপ করে তাহলে তাকে বেশিরভাগ সময়ই শুনতে হয় যে, মান-অভিমান মেয়েদের জন্মগত অধিকার। এই ধারণা নিয়ে বাঁচলে জীবনটা উপভোগ করতে পারবেন না। তার চেয়ে বরং আপনি যেমন, তেমনই থাকুন, তেমন ভাবেই বাঁচুন। মন খারাপ বা অভিমান হওয়ার সাথে লিঙ্গের কোনো বিষয় নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর