‘আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে তেলের দাম সমন্বয় করা হবে’

নিজস্ব প্রতিনিধিঃএক সপ্তাহের মধ্যে সয়াবিন ও পাম অয়েলের আন্তর্জাতিক বাজার পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে পুনরায় মূল্য নির্ধারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেন, “আশা করা হচ্ছে পাম অয়েলের দাম কমতে পারে। তবে সয়াবিনের দাম না কমলেও অন্তত বাড়বে না।”

দ্বিতীয় জাতীয় চা দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি এসব কথা বলেন।

চালের বাজার পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, “বাজারে ক্রেতা বিক্রেতাদের অদ্ভূত আচরণ লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মোটা চাল কেনার ক্রেতা কম। কিন্তু মোটা চাল কেটে চিকন করে প্যাকেটজাত করে বিক্রি হচ্ছে। এতো বোঝা যাচ্ছে মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বেড়েছে।”

বাণিজ্য মন্ত্রী বলেন, “চালের অভাব নেই, একটি গ্রুপ সংকট তৈরি করছে। সে ক্ষেত্রে খাদ্য মন্ত্রণালয় কোনো সহযোগিতা চাইলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় পাশে থাকবে।”

চা প্রসঙ্গে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, “দেশে চায়ের উৎপাদন বেড়েছে, ভোগও বেড়েছে। এজন্য রপ্তানি সম্ভব হচ্ছে না।”

এ সময় মন্ত্রী বলেন, “দেশের মোট জনসংখ্যার ২০ শতাংশ বা প্রায় তিন কোটি মানুষ দারিদ্রসীমার নিচে বসবাস করছে। প্রায় পাঁচ কোটি মানুষের ক্রয়ক্ষমতা ইউরোপের মতো। দরিদ্র শ্রেণির তিন কোটি মানুষকে অ্যাডজাস্ট করা দরকার, সেটার চেষ্টাই করে যাচ্ছি। মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে, সেটা আপনারাও জানেন।”

তিনি উচ্চ ক্রয়ক্ষমতার মানুষের জন্য চিকন চাল ও চায়ের মতো পণ্যের চাহিদা বেড়েছে বলে জানান। অন্যদিকে, দরিদ্র শ্রেণির জন্য সরকার টিসিবির মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে তেল-চিনি-ডালের মতো পণ্য সরবরাহ করছে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ, চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল আশরাফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here